শ্রীনগরে ৫০০ বছরের পুরনো সরকারি দিঘি ভরাট

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে প্রায় ৫০০ বছরের পুরনো সরকারি দিঘি ভরাট করছে প্রভাবশালী এক আওয়ামী লীগ নেতা। প্রকাশ্যে সরকারি খাস জায়গায় ড্রেজার বসিয়ে দিনের পর দিন চলছে মাটি ভরাটের কাজ। লিজ নেওয়ার অজুহাতে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে ভরাট কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ওই নেতা। ক্ষমতাসীন ওই নেতার ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। স্থানীয়দের অভিযোগ, বাধা দিতে গেলে প্রাণনাশের হুমকি আসে। বহিরাগত সন্ত্রাসীরাও সশস্ত্র অবস্থায় দীঘির চারপাশে অনবরত টহল দেয় বলেও ভীত সন্ত্রস্ত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেন। প্রায় ৫০০ বর্ষের পুরনো এ দিঘির জমির পরিমাণ ৮ একর ৪৬ শতাংশ। দীর্ঘদিন থেকেই একটি ভূমিদস্যু চক্র নানা কায়দা করে দিঘিটি অবৈধ দখল নেওয়ার চেষ্টা করে আসছে। সর্বশেষ এলাকার প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল আক্তার মন্টু দিঘিটির প্রায় অর্ধেক একাই জোরপূর্বক দখল করে রেখেছেন বলে দিঘির চারপাশের লোকজন অভিযোগ করেন।

শ্রীনগর সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দা নূর মহল আশরাফি বলেন, সরকারি সম্পত্তি আর দাবিকৃত মালিকদের মধ্যে ডিমারগেশনের একাধিকবার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কতিপয় ভূমিদস্যু সুকৌশলে তা বার বার নস্যাৎ করে দিচ্ছে। দিঘি ভরাটের অভিযোগ এসেছে, ইতিমধ্যেই মন্টুর ব্যবহৃত ড্রেজার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু দিনের বেলায় ড্রেজার বন্ধ থাকলেও রাতে এবং ছুটির দিনে ভরাট কাজ চলছে, এ বিষয়ে কিছু বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি। এ সময় ইউএনও সঞ্জয় চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশার বাণীও শুনিয়েছেন। কিন্তু এর কোনো বাস্তবায়ন নেই বলে এলাকাবাসীরা হতাশ। এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা মন্টু বলেন, ১৪০ শতক জমি লিজ আর মালিকানা ৩৫ ফিট চওড়া রাস্তায় ড্রেজার বসিয়েছি। এতে দোষের কিছু নেই।

ডেসটিনি

Leave a Reply