মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের পদ্মায় স্পীডবোটের ধাক্কায় স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

মাওয়া-কাওরাকান্দি নৌরুটের শিবচরের পদ্মা নদীতে গোসল করতে গিয়ে স্পিডবোটের ধাক্কায় এক স্কুল ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। পারিবারিক সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মত আজ সকালে স্কুলছাত্রী খাদিজা আক্তার (১২) বান্ধবীদের সাথে পদ্মা নদীর হাজরা চ্যানেলে গোসল করতে যায়। নদীর পাড়ে দাড়িয়ে গোসল করার সময় কাওরাকান্দি থেকে মাওয়াগামী দ্রুতগতির একটি স্পীডবোট খাদিজাকে ধাক্কা দেয়। ধাক্কায় খাদিজা গুরুতর আহত হয়। গুরুতর আহত খাদিজাকে নদী থেকে উদ্ধার করে মুমূর্ষাস্থায় রাজধানীর মিটফোর্ট হাসপাতালে নেয়া হয়। দুপুরে সেখানেই তার মৃত্যু ঘটে। নিহত খাদিজা চরচান্দ্রা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর ছাত্রী। সে কাঠালবাড়ি ইউনিয়নের চরচান্দ্রা গ্রামের আলতাফ চৌকদারের মেয়ে। এ ব্যাপারে শিবচর থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুর্ঘটনার শিকার স্পিডবোটের মালিক ও চালকের নাম জানা যায় নাই।

নিহত খাদিজার চাচা মো. বাহাদুর শিকদার জানান, স্পিডবোটের পাখার আঘাতে খাদিজার শরীরের বিভিন্ন অংশ ক্ষত-বিক্ষত হয়ে গেছে। তার পা ও পিঠ থেকে মাংস থেতলে গেছে। ঘাতক স্পিডবোটটি দ্রুত গতিতে চালিয়ে মাওয়া পাড়ে পালিয়ে গেছে। এ স্পিডবোটের মালিক ও চালকের বাড়ি মাওয়া পারে বলে কাওড়াকান্দি ঘাটের চালকরা জানিয়েছে।

কাঠালবাড়ি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. বাদল মুন্সী জানান, নদীর পাড়ের কাঠালবাড়ির চরচান্দ্রা গ্রামবাসীর গোসল ও খাবার পানির তীব্র সংকট। এ কারনে এ গ্রামের অধিকাংশ মানুষ অনেক দুর হেটে গোসলসহ রান্না-বান্নার পানি নিতে পদ্মা নদীতে আসতে হয়।

শিবচর থানার ইনচার্জ আবদুর রাজ্জাক পিএিম জানান, এ ব্যাপারে কোন অভিযোগ পাওয়া যায় নাই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

কালের কন্ঠ

Leave a Reply