কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ॥ স্বামী আটক

মুন্সীগঞ্জ শহরের মাঠপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে পুলিশ দশম শ্রেনীর ছাত্রী গৃহবধু রীমার (১৬) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। একই সাথে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মো. মামুনকে (২৩) আটক করেছে। মামুন সরকারি হরগঙ্গা কলেজের মাস্টার্সের (হিসাব বিজ্ঞান) শেষ বর্ষের ছাত্র।

সদর থানার এস আই মোশারফ হোসেন জানান, চার মাস আগে রীমা ভালোবেসে বিয়ে করেন লজিং মাস্টার মামুনকে। পরিবারের অমতে বিয়ে করে রীমা বাড়ি বরিশালের ঝালকাঠিতে চলে যায়। গত ১ জুন আবার মুন্সীগঞ্জের এসে মাঠপাড়ার মা ভিলায় ১ রুমে বাসা ভাড়া করেন। মামুনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রাত সাড়ে ৯ টায় মামুন বাহির থেকে বাড়ি ফিরে ডাকাডাকি করে দরজা না খুললে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে রীমাকে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে। মামুনের চিৎকারে তখন আশপাশের লোকজন ছুটে আসে এবং পুলিশে খবর দেয়।

এস আই মোশারফ আরো জানান, এটা হত্যা না আত্নহত্যা ময়নাতদন্তের রিপোর্টের আগে বলা যাবে না। তবে মেয়ের পক্ষের কেউ এখনও এ ব্যাপারে কোন অভিযোগ করেনি। রীমার মুন্সীগঞ্জে আসার কথা পরিবার জানত না। মামুন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

রীমার বাবা খালেক সরদার কান্না জড়িত কণ্ঠে জানান, মেয়ের মুন্সীগঞ্জে আসার সংবাদ আজ এভাবে পেতে হবে ভাবতে পারিনি। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। রীমা শহরের পশ্চিম দেওভোগের ব্যবসায়ী খালেক সরদারের কন্যা।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ

ছবি ধার করা হয়েছে কালের ছবির মামুনের ফেছবুক প্রোফাইল থেকে
=========================

মুন্সীগঞ্জে এক কিশোরী বধূর আত্মহত্যা

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার কলেজ পাড়া এলাকায় একটি বাড়িতে রিমা আক্তার ( ১৫) নামে এক কিশোরী বধূ সোমবার রাতে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ তার স্বামী ইয়াছিন আল মামুনকে ( ২৫) আটক করেছে। জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার দেওভোগ এলাকার মেয়ে রিমা আক্তার (১৫) মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী। ঝালকাঠির ছেলে সরকারী হরগঙ্গা কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের (৪র্থ বর্ষ) ছাত্র ইয়াছিন আল মামুন (২৫) মেয়েদের বাড়িতে টিউশনী করত। সে সময় তাদের মধ্যে প্রনয় গড়ে উঠে। ৪ মাস আগে তারা পালিয়ে বিয়ে করে। পরিবারের লোকজন তাদের এই বিয়ে মেনে নেয়নি। বিভিন্ন জায়গায় তারা পালিয়ে থেকে গত ১ জুন কলেজপাড়ায় আবুল কাশেমের বাড়িতে একটি রুম ভাড়া নেয়। ভাড়া নেয়ার সময় তারা ছদ্ম নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে।

ঘটনার দিন টিউশনী শেষে রাত সাড়ে ৭ টার দিকে মেয়েটির স্বামী বাড়িতে এসে দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পায়। পরে জানালা দিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে দেখে দরজা ভেঙ্গে বাড়ির লোকজন মেয়েটিকে মৃত অবস্থায় নামায়। পরে পুলিশে খবর দেয়া হয়। বাড়িওয়ালার স্ত্রী জানায়, মেয়েটি এমনিতে সবার সাথে কম মিশত। তাদের কখনো ঝগড়া করতে দেখিনি। সদর থানার ওসি আবুল বাসার জানান, লাশের সুরতহাল করা হয়েছে। কারন আপাতত স্পষ্ট বলা যাচ্ছে না। মেয়েটির স্বামীকে আটক করা হয়েছে।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ

Leave a Reply