মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান’র বার্ষিক বনভোজন

গত ১০ জুন সাইতামা প্রিফেকচারচারের মিসাতো শহরের মিসাতো পার্কে অনুষ্ঠিত হয়েছে মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান’র বার্ষিক বনভোজন। জাপানের বিভিন্নস্থান থেকে মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুরবাসীরা স্বপরিবারে বনভোজনে অংশগ্রহন করেন। মিসাতো পার্ক বারবিকিউ স্পটে বনভোজনটি বিক্রমপুরবাসীদের মিলন মেলায় পরিনত হয়।

সকাল থেকেই লোক সমাগম শুরু হয়। বিকেল ৪.৩০ এ আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করা হলেও আড্ডা চলে সন্ধ্যার পর পর্যন্ত।

অতীতে মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সোসাইটির যে কোন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশিদের পাশাপাশি আমন্ত্রিত বিদেশিদেরও অংশ গ্রহনের সুযোগ থাকতো। তবে এবার আমন্ত্রিত বিদেশিরা উপস্থিত না থাকলেও বারবিকিউ স্পটে আসা কৌতুহলবশতঃ প্রথমে বাংলাদেশের খাবার গ্রহন করেন। এরপর ভালো লাগায় চেয়ে নেয়া, তারপর নিজেদের মনে করে সরাসরি বাংলাদেশিদের সাথে মিলেমিশে একাকার হয়ে যাওয়া। বাংলাদেশের খাবার তারা পরম তৃপ্তিসহকারে গ্রহন করেন।

পোড়া মাংসের সাথে রুটি খুবই মুখরোচক হিসেবে ধরা দেয় জাপানিদের কাছে।


বনভোজনের পাশাপাশি বিনদনের ব্যাবস্থাও ছিলো। অনুষ্ঠানে এক জাপানি তরুণী ও তার শিশুর দল পারফর্ম করেন। বাচ্চাদের ছোটাছুটি ও বিভিন্ন খেলাধুলায় মেতে থাকা ছিলো অন্যতম আকার্ষণ।

একই দিন সোসাইটির সাধারণ সভা হবার কথা থাকলেও বিশেষ কারণে তা স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতে দিন ধার্য করে জানানো হবে বলে সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক বাদল চাকলাদার জানান।

মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সোসাইটির আয়োজনের নেপথ্যে ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক পদ্মা হালাল ফুডের কর্ণধার জনাব বাদল চাকলাদার।

http://community.skynetjp.com/id479.htm

Leave a Reply