লৌহজংয়ে ছিনতাইকৃত সিএনজিসহ আটক ৪

লৌহজংয়ে ছিনতাইকৃত সিএনজিসহ ৪ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ। একই সাথে আহতাবস্থায় অপহৃত সিএনজি চালক সুমন মিয়া (১৯) উদ্ধার হয়েছে। লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আরজু মিয়া জানান, সোমবার রাতে সাড়ে ১১ টার দিকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ হতে মানিক (২৫), শাহ আলম বাবু (২৫), বিল্লাল হোসেন (৩৪) ও জিলু আলম (৩৯) লৌহজংয়ে যাবার কথা বলে সিএনজি ভাড়া করে লৌহজং আসে।

রাত সাড়ে ১২ টার দিকে শেখেরপাড়া বাস স্ট্যান্ডের কাছে এসে সিএনজি থেকে নেমে ৪ যাত্রী চালক সুমনকে বেদম প্রহার করে ফেলে রেখে ঢাকা খ-১১৭৩ নম্বরের সিএনজি অটো রিক্সাটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

এর কিছুক্ষণ পড়ে মানিকসহ তার দলবল বাসস্ট্যান্ডে এসে বেবি চালককে অন্যত্র সরিয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে তার কাছে জানতে চায় তার কি হয়েছে। বেবি চালক অন্ধকারে মানিককে চিনতে না পেরে বিস্তারিত খুলে বলতে মানিক ও তার দলবল তাকে সাহায্য করার কথা বলে অন্য একটি বেবিতে করে মাওয়ার দিকে রওনা দেয়। এসময় পথি মধ্যে ঘোলতলী বাজারের পাহারাদার তাদের গতি রোধ করে রাতে কোথায় যাচ্ছে জানতে চাইলে গতিবিধি সন্দেহ হওয়ায় সে পুলিশকে খবর দেয়।

লৌহজং থানার এসআই আশরাফ হোসেন সেখানে উপস্থিত হয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে মানিকের সঙ্গীরা সিএনজি ছিনতাইয়ের কথা স্বীকার করে। কথোপকথনের ফাকে মানিক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

পরে পুলিশ মঙ্গলবার ভোর রাত ৫ টার দিকে মানিককে তার বাড়ি হতে সিএনজিসহ আটক করে। এ ব্যাপারে চালক সুমন বাদী হয়ে লৌহজং থানায় দ্রুত বিচার আইনে একটি মামলা করলে পুলিশ ৪ আসামীকে কোর্টে চালান করে।

সিএনজি চালক সুমনের কেরানীগঞ্জের লাকীর চরের শুক্কুর আলীর পুত্র। আসমী মাহ আলম কাজির পাগলা গ্রামের আ. হকের ছেলে, বিল্লাল হোসেন ঝাউটিয়া বর্তা সিংহেরহাটি গ্রামের মৃত নূরু ফকিরের ছেলে, মানিক মসদগাঁওয়ের হাসেম আলীর এবং জিলু সিংহের হাটির মৃত জাব্বার খার ছেলে। সকলেই লৌহজং তানার অধিবাসী।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply