লৌহজংয়ে বেদে পল্লীতে হামলা ভাঙচুর অগ্নিসংযোগ-আহত ১০

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে বেদে পল্লীতে সন্ত্রাসীরা বাড়িঘর ভাঙচুর-লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে। এ সময় হামলা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে বেদে সম্প্রদায়ের রিপন (৩৫), সম্রাট (২৫) ও রুবেলকে (৩০) স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। লৌহজং উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের গোয়ালিমান্দ্রা বেদে পল্লীতে শুক্রবার রাত ১০ টা থেকে দিবাগত রাত ১ টা পর্যন্ত থেমে থেমে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, গোয়ালিমান্দ্রা খালের পাড়ে ও খালে থাকা বেদে পল্লীর লোকদের উচ্ছেদ করতে একটি চক্র দীর্ঘ দিন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে হলদিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রশীদ খানের ছেলে ফারুক খানের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী বেদে পল্লীতে অর্ততিতে হামলা চালায়। এ সময় তারা বেশ কয়েকটি বাড়ি ঘর ভাঙ্চুর করে লুটপাট চালায়। মাওয়া ঘাটের পত্রিকা বিক্রেতা, বেদে সম্প্রদায়ের মো. আনোয়ার হোসেন জানান, সন্ত্রাসীরা মোয়াজ্জেম, জাহাঙ্গীর, রিপন ও তার বাড়িঘর ভাঙ্চুর করে লুটপাট চালায়। এ সময় তার ঘরে রক্ষিত ২৫ মণ ধান নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা বেদে শাহজাহানের ঘরে অগ্নিসংযোগ করে। এ ঘটনার পর রাত ১০-১ টা পর্যন্ত থেমে থেমে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ব্যাপারে লৌহজং থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরজু ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রাতের অন্ধকারে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। দুই পক্ষকে নিয়ে এ বিষয়ে সমঝোতা হচ্ছে ।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ
=================

মুন্সীগঞ্জে বেদেপল্লীতে হামলা-বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, আহত ১০

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার গোয়ালিমান্দ্রা বেদেপল্লীতে একদল সন্ত্রাসী হামলায় চালিয়ে ১০ জনকে আহত করেছেন। এ সময় সন্ত্রাসীরা ওই পল্লীতে ভাঙচুর চালিয়ে অগ্নিসংযোগ করে।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, বেদে রিপন (৩৫), সম্রাট (২৫) ও রুবেলকে (৩০)। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তবে অপর আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোয়ালিমান্দ্রা খালের পাড়ে ও খালে থাকা বেদে নৌকায় শুক্রবার রাত ১০টার দিকে হলদিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রশীদ খানের ছেলে ফারুক খানের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী হামলা চালায়। এ সময় তারা বাড়ি-ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে।

মাওয়া ঘাটের পত্রিকা বিক্রেতা মো. আনোয়ার হোসেন বাংলানিউজকে জানান, সন্ত্রাসীরা বেদেপল্লীতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর করে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে। এ সময় বেদে ঘর থেকে ২৫ মণ ধান নিয়ে গেছে তারা।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনার পর রাত ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত থেমে থেমে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

এবিষয়ে লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরজু মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বাংলানিউজকে জানান, এ ঘটনায় দুইপক্ষের মধ্যে সমঝোতা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ দাখিল করা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply