স্কুলের জমিতে ইটভাটা, ইউপি চেয়ারম্যানকে জরিমানা

মুন্সিগঞ্জে একটি স্কুলের জমিতে ইটভাটা নির্মাণ করে পরিবেশ দূষণের অভিযোগে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে সাত লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। ওই স্কুলের অর্থাভাব দূর করতে ইটভাটা নির্মাণের জন্য স্কুলের জমি ভাড়া দেওয়া হয়েছিল ইউপি চেয়ারম্যানকে। পরিবেশ অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী মঙ্গলবার এক অভিযানে জেলার সিরাজিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের কুচিয়া মোড়া মোড়ে (২য় ধলেশ্বরী সেতু সংলগ্ন পূর্ব পার্শ্বে) কুচিয়ামোড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের জমিতে এই ইটভাটার সন্ধান পান। তিনি পরিবেশ দূষণের দায়ে ইটভাটার মালিক মো. সাইফুল ইসলামকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা এবং আগামী দিনের সাত দিনের মধ্যে ইটভাটার স্থাপনা অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন।

সাইফুল ইসলাম এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। তিনি এই ইটভাটার জন্য স্কুলের তহবিলে আগাম ৩০ লাখ টাকা জমা দিয়েছেন এবং বছরে পাঁচ লাখ টাকা ভাড়া দেবেন বলে স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একটি চুক্তিও সই করেছেন।

পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মঙ্গলবার সাইফুল ইসলামকে ঢাকার পরিবেশ অধিদপ্তরে তলব করে ইঁভাটার সব কাগজপত্র জব্দ করেন।

ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই ইটভাটার জন্য ৭ একর জমির প্রয়োজন। কুচিয়ামোড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ এর ৪ দশমিক ২০ একর জমি ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ইটভাটাভুক্ত জমির মধ্যে অর্পিত সম্পত্তি বাবদ ২ দশমিক ৫০ একর জমিও রয়েছে, যা স্কুলের নামে লিজ দেওয়া।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মুনীর চৌধুরী বলেন, “এ ঘটনা সামাজিক অবক্ষয়ের একটি দুঃখজনক দৃষ্টান্ত। এ প্রবণতা সামাজিক মূল্যবোধকে ধবংস করবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অব্যবহৃত জায়গা বৃক্ষরোপণ, খেলার মাঠ তৈরি কিংবা ভবিষ্যতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স¤প্রসারণের কাজে লাগবে। এখানে ইটভাটা হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পারিপার্শ্বিক পরিবেশ চিরতরে ধবংস হয়ে যাবে।”

তিনি আরো বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর শিক্ষার অনুকূল পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে এই স্কুলের জমিতে কোনোভাবেই ইটভাটা নির্মাণ করতে দেবে না। এই ইটভাটা অবশ্যই উচ্ছেদ করে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

Leave a Reply