মাওয়া শান্ত হলো মধ্যস্থতায়, একই ঘাটে দু’দফা টোল!

১৬ দিন বন্ধ থাকার পর একই স্থানে সরকারের দু’টি প্রতিষ্ঠান টোল আদায় আবার শুরু করেছে। বিআইডব্লিউটিএ জনপ্রতি দুই টাকার পাশাপাশি আরও মমঙ্গলবার থেকে তিন টাকা করেটোল আদায় করছে জেলা পরিষদ ইজারাদার। সিবোট ঘাটের একই চিত্র।

বিআইডব্লিউটিএ জনপ্রতি পাঁচ টাকার পাশাপাশি আরও তিনটাকা করে টোল আদায় শুরু করেছে জেলা পরিষদ। এই অর্থ বছর থেকেই বিআইডব্লিউটিএ’র ইজারাদার নিয়োগ করে সিবোট ঘাট থেকে পাঁচ টাকা করে আদায় শুরু করেছে। দীর্ঘদিন শান্ত থাকার পর মাওয়া এই অশান্ত হওয়ার নেপথ্যে রয়েছে বিআইডব্লিউটিএ’র এই সিবোর্ট ঘাট ইজারাদা প্রদান এবং মন্ত্রী পর্যায়ের নানা স্বার্থ সংশ্লিষ্টতা।

মাওয়া ঘাটের টোল আদায়কে কেন্দ্র করে বিআইডব্লিউটিএ ও জেলা পরিষদের ইজারাদার গ্রুপের মধ্যে সোমবার রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষেও ঘটনাটি স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলির হস্তক্ষেপে সাময়িক শান্ত হয়েছে। তাঁর ঢাকার বাস ভবনে বিআইডব্লিউটিএ’র সিবোট ঘাট ইজারাদার মো. আশরাফ হোসেন ও মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদের ঘাট ইজারাদার মো. হামিদুল ইসলামসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে বৈঠক বসে সোমবার রাতে। বৈঠকে হাইকোর্টের দেয়া রায়কে সম্মান দিয়ে উভয় ইজারাদারই সকল প্রকার সংঘাত এড়িয়ে মাওয়া ঘাটে টোল আদায়ে সম্মত হয়।

এই আলোকেই মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে মাওয়া পদ্মা সেতু রেস্ট হাউজে লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা মো. সাইফুল ইসলামের উপস্থিতিতে উভয় ইজারাদার ও তাদের লোকজনের সাথে প্রশাসনের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল রশিদ সিকদারসহ ঘাট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বর্গ। বৈঠকের পরই উভয় ইজারাদার সকাল সাড়ে ১০ টা হতে মাওয়া ঘাটে টোল আদায় শুরু করে। এখন জেলা পরিষদের ইজারাদার খেয়ার সব ধরণের যাত্রীদের কাছ থেকে তিন টাকা করে টোল আদায় করছে। তাই লঞ্চ যাত্রীদের ঘাটে জনপ্রতি ৫ টাকা হারে এবং সিবোট যাত্রীদের ৮ টাকা হােও টোল গুনতে হচ্ছে।

এদিকে আপাততঃ সমস্যার সমাধান হলেও মাওয়া ঘাটের দুই মন্ত্রণালয়ে দুটি ঘাটের ভাগ্য কাল বৃস্পতিবার হাই কোর্টের একটি ফুল ব্রেঞ্চেই নির্ধারিত হবে- মাওয়া প্রান্তে খেয়া ঘাট হবে একটি না দু’টি। মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের কাওড়াকান্দিতে দু’টি ঘাট থাকলেও বিআইডব্লিউটিএ সেই বিষয়ে আদালতে মামলা করেনি। মাওয়া প্রান্তের বিষয়টি নিয়েই মামলার ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ বিস্ময় প্রকাশ করেছে।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply