আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন খোকা

হরতালে গাড়ি পোড়ানোর মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নিয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা। সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে গতরাতে দেশে ফিরে আজ সকালেই তিনি ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে মহানগর হাকিম হারুন-অর-রশিদ তা মঞ্জুর করেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে গাড়ি পোড়ানোর মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকাসহ বিরোধী দলের ৪৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মঙ্গলবার অভিযোগ গঠন করে ঢাকার দ্রুত বিচার আদালত। ওইদিন আদালতে হাজির না হওয়ায় খোকাসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারিরও নির্দেশ দেয়া হয়। খোকার আইনজীবী মোঃ বোরহানউদ্দিন আজ জামিনের আবেদনে আদালতকে বলেন, হরতালের মামলায় কিছুদিন কারাগারে থাকার পর উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে গত ২৭ জুন কিডনির চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যান এই বিএনপি নেতা। সেখানে অস্ত্রোপচার শেষে গতকাল বুধবার রাতে দেশে ফিরে তিনি পরোয়ানা জারির কথা জানতে পেরেছেন। খোকা যেহেতু উচ্চ আদালতের অনুমতি নিয়েই চিকিৎসার জন্য বিদেশে গিয়েছেন, সেহেতু তার জামিন বহাল রাখার আবেদন জানান আইনজীবী। তার বক্তব্য শুনে বিচারক সাদেক হোসেন খোকার স্থায়ী জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এম ইলিয়াস আলীর ‘সন্ধান’ দাবিতে বিএনপির ডাকে হরতালের সময় গত ২৯ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে গাড়ি পোড়ানো হয়। ওই রাতেই তেজগাঁও থানায় বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ৪৪ নেতাকর্মীকে আসামি করে একটি মামলা করে পুলিশ। এরপর গত ১০ মে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ৪৫ জনের বিরুদ্ধে মামলাটিতে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। এরপর ২৭ মে ছাত্রশিবির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জব্বারকে আসামি করে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয়।

দিনের শেষে

Leave a Reply