ধর্ষণ ঘটনা ধামাচাপা : অবশেষে মামলা, প্রতিবন্ধী পুলিশ হেফাজতে

হাইকোর্টের রুলের পর অবশেষে প্রবিতন্ধী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় লৌহজং থানায় মামলা হয়েছে। একই সঙ্গে গতকাল শুক্রবার বিকেলে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য ওই কিশোরীকে পুলিশ হেফাজতে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার বাদী থানার এসআই বিল্লাল হোসেন।

সূত্র জানিয়েছে, পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে মামলা করলেও কৌশলের আশ্রয় নিয়ে নিজেদের রক্ষার জন্য সময় দেখানো হয়েছে সকালে। এই ধর্ষণ মামলায় আসামি করা হয়েছে তিনজনকে। তবে তদন্তের স্বার্থে নাম উল্লেখ করতে রাজি হননি লৌহজং থানার ওসি মো. আবদুল মালেক।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. এহসানুল করিম জানান, গতকাল বিকেল ৪টায় ধর্ষিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়ে আসে পুলিশ। আংশিক পরীক্ষা হলেও আবার আজ শনিবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা করা হবে।

উল্লেখ্য, ১ আগস্ট দৈনিক কালের কণ্ঠের ১৮ নম্বর পাতায় প্রকাশিত ‘লৌহজং থানায় বৈঠক করে ধর্ষণ ঘটনা ধামাচাপা’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট বৃহস্পতিবার রুল জারি করেন এবং থানার দুই ওসি ও আওয়ামী লীগ নেতা মনির হোসেন মাস্টারকে আগামী ১২ আগস্ট হাইকোর্টে তলব করেছেন।

কালের কন্ঠ

Leave a Reply