বাংলাবাজারে যুবকের আত্মহত্যা

নিজের পছন্দে বিয়ে করেছেন এক বছর আগে। কিন্তু তার মা-বাবা এ বিয়ে মেনে নেয়নি। আবার বিয়ের পর নববধূ স্ত্রী’র সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না। এসব ঘটনায় অভিমান করেই মুন্সীগঞ্জে সুমন জমাদ্দার (২৬) নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। এ ধারণা মুন্সীগঞ্জ থানা পুলিশের। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নে শম্ভুহালদার গ্রামের বসতবাড়ি থেকে পুলিশ সুমনের লাশ উদ্ধার করে। সুমন জমাদ্দার ওই গ্রামের হরি জমাদ্দারের ছেলে।

সদর থানার এস আই সিদ্ধার্থ জানায়, বছর খানেক আগে বাবা-মা’র অমতে নিজে পছন্দ করে শহরের মালপাড়া গ্রামের উত্তমের ইন্টারমিডিয়েট পড়–য়া কন্যা অনামিকাকে বিয়ে করে। বিয়ের পর অনামিকার চালচলন নিয়ে তাদের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। সুমন ঢাকার একটি মোবাইল ফোনের দোকানে চাকরি করার সুবাদে তারা ঢাকাতেই থাকতো।

গত কয়েকদিন আগে স্বামীর সঙ্গে রাগ করে অনামিকা বাবার বাড়িতে চলে আসে। সুমনও ঈদের ছুটিতে দেশের বাড়ি বাংলাবাজারে চলে আসে। মেক্ষাইল ফোনে গত সোমবার স্বামী-স্ত্রী দীর্ঘ সময় কথা বলে। এ সময় সুমন তার স্ত্রীকে অভিমান ভুলে তার বাড়িতে চলে আসার জন্য বলে। এতে স্ত্রী অনামিকা সাড়া দেয়নি। এত ক্ষোভে-অভিমানে সোমবার দিবাগত রাতে বাড়ির পাশের বড়ই গাছে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে সুমন আতœহত্যার পথ বেছে নেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় সুমন জমাদ্দারের লাশ উদ্ধার করে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের মামা গৌরাঙ্গ বাদী হয়ে সদর থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেছেন

জাস্ট নিউজ

Leave a Reply