বিচারক-আইনজীবীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ: সমাধানে কমিটি গঠন

বিচারক ও আইনজীবীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ নিয়ে মুন্সীগঞ্জের আদালত পাড়া এখন সরগরম। জেলা ও দায়রা জজ আইনজীবী সমিতির কাছে এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে অশালীনতার অভিযোগ করেছেন। অন্যদিকে, আইনজীবী অভিযোগকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন।

জানা গেছে, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন খান স্বপনের এক মামলার আসামির শুনানি করা হয়নি বলে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাওহিদা আক্তারকে সম্প্রতি হুমকি দেন ও অশালীন উক্তি করেছেন।

এ বিষয়ে জেলা ও দায়রা জজ মঞ্জুর বাছিদ অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন খান স্বপনের বিরুদ্ধে আইনজীবী সমিতির কাছে অভিযোগ করেন। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিত সোমবার জেলা আইনজীবী সমিতি এক জরুরি সাধারণ সভা করলে এতে সালাউদ্দিন খান তার বিরুদ্বে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেন।

পরে প্রকৃত ঘটনা অনুসন্ধান এবং সমস্যা সমাধানে ঊর্ধ্বতন আইনজীবীদের সমন্বয়ে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়।

এদিকে, এই সিদ্ধান্তকে উপলক্ষে করে ওইদিন অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন খান আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে তার অনুসারীদের নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে এক প্রতিবাদ সভা করেন।

এ বিষয়ে জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. এমারত হোসেন বাংলানিউজকে জানান, অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন খাণ স্বপনের অশালীন আচরণ নিয়ে জেলা ও দায়রা জজ অভিযোগ করেন।

তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সমিতি এক জরুরি সভা করে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, কিন্তু এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ওইদিন সমিতির প্রাঙ্গণে এসে অ্যাডভোকেট স্বপন ওই বিচারকের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ তোলেন প্রকাশ্যে মাইকের মাধ্যমে, যা একটি গর্হিত কাজ। এ সমস্যা সমাধানে গঠিত কমিটি একটি সমঝোতার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
====================

মুন্সীগঞ্জে ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে আইনজীবীর অসদাচরণের অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাওহীদা আক্তারের সঙ্গে অসদাচরণের অভিযোগ উঠেছে আইনজীবী সালাউদ্দিন খান স্বপনের বিরুদ্ধে। জেলা ও দায়রা জজের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা আইনজীবী সমিতি সোমবার জরুরী সাধারণ সভা করেছে। এই সভায় দীর্ঘ আলোচনা শেষে সিনিয়র আইনজীবীদের নিয়ে ১৩ সদস্যবিশিষ্ট সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি উদ্ভূত পরিস্থিতি সুষ্ঠু সুরাহার ছাড়াও বার ও বেঞ্চের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখা এবং বিচার প্রার্থী জনগণের ন্যায় বিচার পাওয়া স্বার্থে কাজ করবে।

জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও এই কমিটির সদস্য মোঃ এমারত হোসেন এসব তথ্য দিয়ে বুধবার রাতে জানান, ইতোমধ্যেই কমিটি কাজ শুরু করেছে। তিনি সভার রেজুলেশন প্রদর্শন করে বলেন, একটি স্বার্থানেষী মহল সভার সিদ্ধান্তের পরিপন্থী প্রচারণা চালিয়ে বার ও বেঞ্চের সম্পর্কে ব্যাঘাত সৃষ্টিসহ ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। এহেন ঘটনার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে তিনি জানান, সত্যকে ঢাকা দেয়ার অপচেষ্টা সফল হবে না। তিনি তিনটি পত্রিকার (দৈনিক যুগান্তর, মানবজমিন ও দৈনিক আজকালের খবর) নাম উল্লেখ করে বলেন, এ সংক্রান্ত ভিত্তিহীন ও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশে আইনজীবী সমিতি তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে।

এদিকে অসদাচরণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আইনজীবী সালাউদ্দিন খান স্বপন। অপর দিকে আদালত সূত্র জানিয়েছে- জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাওহীদা আক্তারের সঙ্গে অসদাচরণের রেকর্ড তাদের হাতে রয়েছে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply