প্রেমিকার বাড়ির সামনে প্রেমিকের আত্মহত্যা

রাজধানীর আদাবর এলাকায় প্রেমে ব্যর্থ হয়ে প্রেমিকার বাড়ির সামনের নিমগাছের ডালে এক যুবক আতœহত্যা করেছে। নিউমার্কেট এলাকায় অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে এক রিকশাচালকের মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার দুপুরে পুলিশ আদাবর থানাধীন ঢাকা হাউজিংয়ের এক নম্বর সড়কের ৩৫ নম্বর বাড়ির সামনে নিমগাছের ডাল থেকে আব্দুল মালেক (১৯) নামে এক কিশোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে পাঠায়।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, আব্দুল মালেক পেশায় রাজমিস্ত্রী। দীর্ঘদিন ধরে সে ঢাকা হাউজিংয়ের এক নম্বর সড়কের ৩৯ নম্বর বাড়িতে ভাড়া থাকে। এখানে থাকার সুবাদে প্রায় চার বছর ধরে মালেক আদাবরের পোশাক কারখানার এক তরুণী শ্রমিকের সঙ্গে প্রেম করে আসছিলেন। পার্শ্ববর্তী ৩৫ নম্বর বাড়ি গার্মেন্টস কর্মী আসমা আক্তার অনুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। নিহতের প্রতিবেশীরা জানান, ঈদের পর মালেকের কোন কাজ না থাকায় বেকার ছিল। এ নিয়ে ৪/৫ দিন আগে মালেকের সঙ্গে অনুর মনোমালিন্য হয়। বেকার যুবকের সঙ্গে তার কোন প্রেম নেই অনু এমন কথা মালেককে বলে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য দেখা দেয়।

এরই জের ধরে তিন আগে মালেক অভিমান করে ঘরে ইঁদুরের ওষুধ পান করেন। পরে মালেককে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করে বন্ধুরা। সেখানে ভাল হয়ে সে বাসায় ফিরে আসে। এতে প্রেমিকা অনর মান ভাঙ্গে না। পরে অভিমান করে মালেক প্রেমিকার ভাড়া বাসার সামনে নিমগাছে গলায় দড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। নিহতের পিতার নাম তৈয়ব আলী। গ্রামে বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি থানার নোয়াপাড়া গ্রামে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply