বেকারত্ব দূর করতে সরকার নানা কর্মসূচি নিয়েছে: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার বলেছেন, বর্তমান সরকার যুব সমাজের বেকারত্ব দূর করতে নানামুখি পদক্ষেপ নিয়েছে। তবুও যুব সমাজের একটি বিশাল অংশ বেকার হয়ে অভিশপ্ত জীবনযাপন করছে। বুধবার বিকেল ৪টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সার্কিড হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, “দেশের ১৬ কোটি জনগণের মধ্যে এক তৃতীয়াংশ যুবক বেকার। তাদের আত্মকর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করা হলে ভবিষ্যতে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে। তাই বর্তমান সরকার বেকার তরুণ-তরুণীদের ২ বছর মেয়াদী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে।”

তিনি বলেন, “কৃষি ট্রেড, মৎস ট্রেড, পশুপালন ট্রেড ও পল্ট্রি ট্রেড এ ৪টি ট্রেডে বেকার যুবকদের আত্মনির্ভশীল হওয়ার জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।”

এদিকে বাস্তবচিত্র নিজ চোখে দেখতে মুন্সীগঞ্জে ঝটিকা সফর করা হয়েছে দাবি করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার।

এ সময় তিনি মুন্সীগঞ্জের বজ্রযোগনীতে অবস্থিত যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও শহরের উপ-পরিচালকের কার্যালয়ের কার্যক্রম দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এ সময় তিনি কার্যালয়ে বিনা ছুটিতে অফিসে অনুপস্থিত না থাকার অভিযোগে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তররের উপ পরিচালকের কার্যালয়ের উচ্চমান সহকারী হোসনে আরা বেগমকে সাময়িক বরখাস্ত করেছেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহবুব আহমেদ, যুব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মঞ্জুরুল হক, ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সচিব আব্দুর রহমান, জেলা প্রশাসক মো. আজিজুল আলম, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি শহীদ-ই-হাসান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক কাজী দীপু প্রমুখ।

বুধবার দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত প্রতিমন্ত্রী ঝটিকা সফরে মুন্সীগঞ্জে গিয়ে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও ক্রীড়া সংস্থার কার্যক্রম ঘুরে দেখেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

============================

দেশে ১৬ কোটি জনগোষ্ঠীর এক তৃতীয়াংশ যুবক-যুবতী বেকার : যুব-ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার বলেছেন- দেশের ১৬ কোটি জনগোষ্ঠীর এক তৃতীয়াংশ যুবক-যুবতী বেকার রয়েছে। এদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে না পারলে ভবিষ্যতে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে। তাই সরকার বেকার যুবক-যুবতীদের আতœনির্ভরশীল হিসেবে গড়ে তুলতে ২ বছর মেয়াদের প্রশিক্ষনের পদক্ষেপ নিয়েছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মাধ্যমে মৎস, পোল্ট্রি, কৃষি ও পশু পালনের উপর ৪টি বিষয়ে প্রশিক্ষন দেওয়া হচ্ছে বেকার যুবক-যুবতীদের। মুন্সীগঞ্জ সদরে এক আকস্মিক ঝটিকা সফরে এসে জেলা সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী এ সব কথা বলেন। এদিকে, জেলা শহরের কাছে কাটাখালী এলাকাস্থ যুব উন্নয়ন অফিস পরিদর্শনকালে বিনা ছুটিতে অনুপন্থিত থাকার অপরাধে অফিসটির উচ্চমান সহকারী হোসনে আরা বেগমকে বরখাস্ত করেছেন প্রতিমন্ত্রী নিজেই। এ সময় প্রতিমন্ত্রীর সফরসঙ্গী ছিলেন- যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সচিব মাহবুব আহমেদ, যুব অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক একে মঞ্জুরুল হক, ক্রীড়া সংস্থার সচিব আব্দুর রহমান প্রমুখ।

বুধবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত এক আকস্মিক সফরে মুন্সীগঞ্জ সদরের যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, শহরের জেলা স্টেডিয়াম, সুইমিং পুল ও শহরের কাছের যুব উন্নয়ন অফিস পরির্দশন করেছেন যুব-ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার। জেলা প্রশাসনের কাউকে পূর্ব থেকে অবগত না করে প্রতিমন্ত্রী বুধবার দুপুর ১ টার দিকে আকস্মিক সফরে সদর উপজেলার বজ্রযোগিনী ইউনিয়নের ভাঙ্গা এলাকার যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর পরিদর্শন করেন। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ দেখতে পেলেও প্রতিমন্ত্রী কর্মকর্তা-কর্মচারিদের উপস্থিতিতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। পরে তিনি শহরের কাছে যুব উন্নয়ন অফিস পরিদর্শনে গেলে উচ্চমান সহকারী পদের নিযুক্ত কর্মকর্তা হোসনে আরা বেগমকে কর্মস্থলে বিনা ছুটিতে অনুপস্থিত পেলে তাৎক্ষনিক তাকে বরখাস্ত করেন প্রতিমন্ত্রী। এরপর দুপুর ২ টার দিকে জেলা সার্কিট হাউজে জেলায় কর্মরত বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও দৈনিক পত্রিকার প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন প্রতিমন্ত্রী। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। জেলার খেলাধুলার পরিবেশ তৈরি ও খেলোয়াড় সৃষ্টির লক্ষ্যে কার্যকরি পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি কামনা করেন সাংবাদিকরা। ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ী সাতারু ব্রজেন দাসের জন্মভূমিতে শহরের সুইমিংপুলে সাতারু সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা নিতে প্রতিমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন সাংবাদিকরা। মতবিনিময় শেষে প্রতিমন্ত্রী শহরের মাঠপাড়া এলাকায় জেলা ষ্টেডিয়াম, ক্রীড়া সংস্থার অফিস ও সার্কিট হাউজ সংলগ্ন সুইমিংপুল পরিদর্শন করেন।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ

Leave a Reply