কিশোরকে জবাই করে হত্যার চেষ্টা, ছাত্রদল নেতাসহ ৪জনকে আসামি করে মামলা

ফলোআপ
মুন্সীগঞ্জে মানিক (১৮) নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দেওয়ার কয়েক ঘন্টা পর জবাই করে হত্যা চেষ্ঠার অভিযোগে জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতিসহ ৪ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। বুধবার মধ্যরাতে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় দায়ের করা এ মামলার বাদী হয়েছেন মানিকের চাচা মো. নাসির মিয়া। মামলায় শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর গ্রামের জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মোস্তফা হাবিবে আলম শাহরিয়ার, বাকাউল ওরফে বাক্কা, রাজু, সোহাগসহ আরো ৪-৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

ওদিকে মারাতœক জখম নিয়ে ঢাকা বক্ষব্যাধী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মানিক মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে বলে তার স্বজনরা জানিয়েছেন। মানিকের চাচা আব্দুল আজিজ জানায়, শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর গ্রামের জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি শাহরিয়ার, বাকাউল ওরফে বাক্কা, রাজু, সোহাগসহ কয়েকজন বখাটে গরু জবাইয়ের ধারালো ছোরা দিয়ে মঙ্গলবার রাত ১১ টার দিকে নিজ বাড়ির কাছে শহরের সরকারি হরগঙ্গা কলেজের পেছনে কিশোরকে জবাই করে হত্যার চেষ্টা চালায়। পরে কিশোরের আত্মীয়-স্বজন খবর পেয়ে কলেজের পেছনের খালের পাড় থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। এ সময় তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আরো ৬-৭টি ধারালো দায়ের কোপের চিহ্ন পাাওয়া গেছে। কিশোরের স্বজনরা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।


এর আগে একই দিন সন্ধ্যার দিকে নিজ বাড়ি সংলগ্ন সড়কে কিশোরকে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দেয় একই সন্ত্রাসী চক্র। কিশোর মানিক শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর গ্রামের বিএনপির একনিষ্ঠ কর্মী প্রয়াত আবুল হোসেন ওরফে আবু মিয়ার ছেলে। কিশোর মানিককে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দেয়। পরে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরে আসলে রাত ১১ টায় ফের ওই কিশোরের উপর হানা দেয় একই সন্ত্রাসীরা। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৭ টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার সেকেন্ড অফিসার সুলতান আহমেদ জানান, এ ঘটনায় বুধবার রাত ১১ টার দিকে মামলা হয়েছে। সন্ত্রাসীরা পলাতক থাকায় গত দু’দিনেও কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে,সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের জোর চেষ্ঠা চলছে।

জাস্ট নিউজ

Leave a Reply