স্রোতে ফেরি চলাচল ব্যাহত, যানজট মাওয়ায়

তীব্র স্রোতে মাওয়ায়-কাওড়াকান্দি নৌ পথে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় উভয়পাড়ে আটকে গেছে বেশ কিছু যানবাহন। বিআইডব্লিউটিসির মাওয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক সিরাজুল হক সাংবাদিকদের জানান, পদ্মার পানি মঙ্গলবার ১৩ সেন্টিমিটার বেড়েছে। এতে ¯্রােতের তীব্রতাও বেড়েছে।

“নাব্য সঙ্কটে রোববার কবুতরখোলা চ্যানেলে ফেরি চলাচল বন্ধ হওয়ার পর লৌহজং-হাজরা চ্যানেল দিয়ে ফেরি চলাচল করছে। এতে নৌ পথের দূরত্ব দুই কিলোমিটার বেড়েছে অন্যদিকে ফেরিগুলোকে তীব্র স্রোতের মুখে পড়তে হচ্ছে।”

তিনি জানান, ডাম্প ফেরি রায়পুরা, রাণীক্ষেত, লেন্টিন, রামশ্রী ও যমুনা বন্ধ রাখা হয়েছে। অন্য সাতটি ফেরি ‘কোনো রকমে’ চলাচল চলছে। ফলে উভয়পাড়ে প্রায় তিনশ যানবাহন আটকা পড়েছে।

মাওয়ায় আটকে থাকা বাগেরহাটের বাসযাত্রী জাফর মিয়া, খুলনার আকরাম হোসাইন, বরিশালের ছাদেক মিয়া জানান, দুপুরে মাওয়ায় এলে সন্ধ্যার পরও তারা ফেরিতে উঠতে পারেননি।

নতুন চ্যানেলে কাওড়াকান্দি থেকে মাওয়া ১৯ কিলোমিটার পথ আসতে সময় লাগছে ৩ থেকে সাড়ে ৪ ঘণ্টা। কিন্তু মাওয়া থেকে স্রোতের অনুকূলে কাওড়াকন্দি পৌঁছতে আড়াই ঘণ্টা সময় লাগছে বলে জানান বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তা।

রোববার রাতে কবুতরখোলা চ্যানেলে শাহ মখদুম ফেরিটি আটকে গেলে এ নৌ পথে প্রায় ছয় ঘণ্টা যান পারাপার বন্ধ থাকে। পানি বাড়লেও পলিতে চ্যানেলের প্রশস্ততা কমে যাওয়ায় কবুতরখোলা চ্যানেল চালু করা যাচ্ছে না। এ পথে গত এক মাসে ১৮ বারের বেশি ফেরি ও লঞ্চ আটকে যাওয়ার ঘটনা ঘটে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

Leave a Reply