পঞ্চসার-বিসিক সংলগ্ন গরুর হাটের টেন্ডার নিয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষ

মুন্সীগঞ্জের পঞ্চসার-বিসিক সংলগ্ন গরুর হাটের শিডিউল জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে বিএনপি-আওয়ামী লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ৪ পুলিশসহ বিএনপি-আওয়ামী লীগের ১৫ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও জেলা বিএনপির সহসভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন (৫২), তার চাচাতো ভাই গোলাম কিবরিয়া (৩৫), দলীয় কর্মী সবুজ (৪০), নিজাম মেম্বার (৩৫), আওয়ামী লীগ কর্মী নয়ন (২৮), মামুন (২৬), সদর থানার এএসআই মনিরুজ্জামান (৩২), জিহাদুল (৩৮), কনস্টেবল আলামিন (২৪) ও মাসুদ পারভেজ (২৪) কে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ অবস্থায় আওয়ামী লীগ ও পুলিশের আক্রমণের মুখে সাবেক উপমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাইয়ের ছোটভাই বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মহিউদ্দিনকে শিডিউল জমা দিতে পারেননি বলে তিনি অভিযোগ করেন। গতকাল দুপুর ১টা পর্যন্ত ছিল শিডিউল জমা দেয়ার শেষ সময় ছিল।


বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, গতকাল দুপুর পৌনে ১টার দিকে মুন্সীগঞ্জ শহর উপকণ্ঠের পঞ্চসার-বিসিক সংলগ্ন পশুরহাটের টেন্ডার জমা দেয়ার জন্য মুন্সীগঞ্জ উপজেলা পরিষদে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে যাই। এ সময় জেলা পরিষদ চত্বরে প্রবেশ করলে আওয়ামী লীগের কর্মীরা টেন্ডার জমা দিতে বাধা দেয়। তাদের বাধা উপেক্ষা করে এগুতে চাইলে পুলিশের সহযোগিতায় আওয়ামী লীগের জাহিদ হোসেন, মান্না, আমিন, তপন, আওলাদ হোসেন কাজলসহ একদল কর্মী আমাদের উপর হামলে পড়ে। আমাকে অপমান-অপদস্থসহ আমার সঙ্গে থাকা দলীয় কয়েক নেতা-কর্মীকে মারধর করে উপজেলা পরিষদ থেকে বের করে দেয়। এ ঘটনার পর আমরা শিডিউল জমা দিতে পারিনি।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ কর্মীরা জানান, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মহিউদ্দিনকে সমঝোতার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। তা তিনি মানেননি। আমরা সিন্ডিকেট করে শিডিউল জমা দিয়েছি। নির্ধারিত সময়ের পরে শিডিউল জমা দেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে তাদের ধস্তাধস্তি হয় ও হাতাহাতি হয়। আওয়ামী লীগের কোন কর্মীর সঙ্গে তার কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পুলিশই তাদের বের করে দেয়। মুন্সীগঞ্জ সদর থানার এএসআই মনিরুজ্জামান জানান, দু’পক্ষ হট্টগোল শুরু করলে আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য লাটিচার্জ করি। এ সময় কে কোন দলের নেতা বা কর্মী তা আমাদের নজরে ছিল না। এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সারাবান তাহুরা বলেন, নিয়ম-মাফিকভাবেই টেন্ডার জমা পড়েছে। সামান্য ঝামেলা হয়েছিল। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

মানবজমিন
===========================

মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ৬

মুন্সীগঞ্জে গরুর হাটের টেন্ডার দাখিল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সংঘর্ষে চার পুলিশসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে সদর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে এ ঘটনা ঘটে। আহত সদর থানার এএসআই মনিরুজ্জামান (৩২), জিহাদুল (৩৮), কনস্টেবল আলামিন, পারভেজ, আওয়ামী লীগ কর্মী মামুন (২৮), নয়ন (২৬) ও বিএনপি কর্মী কিবরিয়া ও সবুজকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনার পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন এবং সেখানে আরো অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা গেছে, মুক্তারপুর বিসিক সংলগ্ন গরুর হাটের ১০টি সিডিউলের মধ্যে নয়টি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও একটি বিএনপি নেতা ক্রয় করেন। মঙ্গলবার দুপুর একটা বাজার পাঁচ মিনিটি আগে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. মহিউদ্দিন সিডিউল দাখিল করতে সদর উপজেলা পরিষদে আসে।

এ সময় সমঝোতার পরিবর্তে সিডিউল দাখিল করতে চাইলে আওয়ামী লীগ কর্মীরা বাধা দেয়। এতে বিএনপির নেতাকর্মীরা উত্তেজিত হয়ে পড়লে আওয়ামী লীগ কর্মী জাহিদ গ্রুপের সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে পুলিশ উভয়পক্ষকে ধাওয়া দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

সদর থানার এএসআই মনিরুজ্জামান জানান, শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী নিয়ে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে হামলা চালালে ইটপাটকেলের আঘাতে দুই এএসআইসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এছাড়া দুই আওয়ামী লীগ কর্মীও আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

তবে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. মহিউদ্দিন তার নেতৃত্বে হামলার অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে জানান, ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত এস আই নজরুল ও মনিরুজ্জামানসহ পুলিশ সদস্যরা অতিউৎসাহী হয়ে সিডিউল দাখিল করতে অফিস কক্ষে যেতে দেয়নি। তিনি আরও জানান, এ কারণে সিডিউল দাখিল করতে পারিনি। উল্টো পুলিশ লাঠিচার্জ করে বিএনপি নেতাকর্মীদের তাড়িয়ে দিয়েছে। এ সময় পুলিশ ও আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসীদের হামলায় কিবরিয়া ও সবুজ নামের দুই বিএনপি কর্মী আহত হয়েছেন।


সদর উপজেলা পরিষদের নাজির মো. মনিরুজ্জামান জানান, পঞ্চসার বিসিক সংলগ্ন হাটের ১০টি, চরডুমুরিয়া হাটের চারটি ও বজ্রযোগনী হাটের একটি সিডিউল বিক্রি হয়। মঙ্গলবার দুপুর একটা পর্যন্ত সিডিউল দাখিলের শেষ সময় ছিল। তবে কোনো হাটের সিডিউল নিয়ে ঝামেলা হয়েছে ও মোট কয়টি সিডিউল দাখিল করা হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি।

বার্তা২৪ ডটনেট/জিহ

================

মুন্সীগঞ্জে হাটের ইজারা নিয়ে বিএনপির ওপর হামলা

মঙ্গলবার গরুর হাটের ইজারাকে কেন্দ্র আওয়ামী লীগের সমর্থক সিন্ডিকেট গ্রুপের বাধা ও হামলার মুখে বিএনপির সিন্ডিকেট গ্রুপ তাদের দরপত্র জমা প্রদান করতে পারেনি। এতে বিএনপির ৫ জন আহত হয়েছে। তাদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

জানা যায়, মঙ্গলবার মুন্সীগঞ্জে মুক্তারপুরে বিসিক শিল্পনগরীর মাঠসহ ৮ হাটের দরপত্র আহ্বান করা হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত ছিল দরপত্র জমার শেষ সময়। এই সময়ের মধ্যে গোলাম রসুল ও জাহিদ হাসান নামে দুইজন একটি ৭৩ লাখ এবং অপরটি ৪৮ লাখ টাকার দরপত্র জমা দেয়া হয়। কিন্তু দরপত্র জমাদানের শেষ মুহূর্তে দুপুর ১টা বাজার ৫ মিনিট পূর্বে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট গ্রুপ তাদের দরপত্র জমা দিতে গেলে আওয়ামী লীগের সমর্থক দলটি তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে তারা তাদের ওপর হামলা করে। এ সময় তারা বিএনপি নেতা মহিউদ্দিন আহমেদের ছোট ভাই গোলাম কিবরিয়াসহ কয়েকজন আহত হন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। তবে বিএনপি নেতা মহিউদ্দিন আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, আমরা পুলিশের সহযোগিতা চেয়েও পাইনি। তারা নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে। তারা সময়ের আগে দরপত্র জমা দিতে আওয়ামী লীগের গোলাম মাওলা তপন, জাহিদ হাসানসহ একটি গ্রুপ তাদের ওপর হামলা করে। এতে তাদের কয়েকজন আহত হয়। হামলাকারীরা তাদের দরপত্রটি ছিঁড়ে ফেলে।
এ প্রসঙ্গে সাবেক জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম মাওলা তপন জানান, আমার সম্বন্ধে বিএনপির নেতার অভিযোগ ঠিক নয়। আমি উপজেলা কার্যালয়ে এমনি গিয়েছিলাম। তবে দরপত্র প্রসঙ্গে প্রশ্ন করতে তিনি বলেন, এবারের দরপত্রটি প্রতিযোগিতার মাধ্যমে হয়েছে। কারণ গতবার এই হাট মাত্র ৩৬ লাখ টাকায় ইজারা প্রদান করা হয়েছিল। এবার ৭৩ লাখ টাকা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সারাবান তাহুরা বলেন, আমি সারাক্ষণ দরপত্র বাক্সের সামনে ছিলাম। বাইরে কী হয়েছে বলতে পারব না। তবে বাইরে লোকজনের হট্টগোলের আওয়াজ শোনা গেছে। বিসিক মাঠের হাট সর্বোচ্চ দরদাতা গোলাম রসুলকে ৭৩ লাখ টাকায় প্রদান করা হয়েছে।

সদর থানার ওসি আবুল বাশার বলেন, গরুর হাটের ইজারা নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই পক্ষের মধ্যে ঝগড়া হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নিয়েছে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply