পদ্মা সেতু নির্মাণে শিশু বলির গুজবে স্কুলসমূহে আতঙ্ক

পদ্মা সেতুতে শিশু বলির গুজব খবরে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরাঞ্চলসহ শহরের প্রায় শতাধিক প্রাইমারি স্কুলে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বৃহস্পতিবার সকালে বহুল আলোচিত-সমালোচিত পদ্মা সেতু নির্মাণে শিশু বলির গুজব ছড়িয়ে পড়ে সেখানকার প্রাইমারি স্কুলগুলোতে।

সেতুর পিলারের নিচে শিশু বলি দেওয়ার এ গুজবে বৃহস্পতিবার হাজার হাজার খুদে শিক্ষার্থী ও অভিভাবক রীতিমত আতকে উঠেন। অধিকাংশ পরিবারের লোকজনই বৃহস্পতিবার তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠানো থেকে বিরত থেকেছেন। আবার অনেকে সন্তানকে আতঙ্কের মধ্যে স্কুলে দিয়ে ও নিয়ে যেতে দেখা গেছে।

শহরের ইদ্রাকপুর ১ নম্বর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সদরের আধারা, শিলই, মোল্লাকান্দি, মহাকালী, চরকেওয়ার ও বাংলাবাজার ইউনিয়নের অন্তত শতাধিক প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষার্থীরা শিশু বলির আতঙ্কে ভুগছে বলে জানান সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসের সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. আজগর আলী।


তিনি জানান, বৃহস্পতিবার প্রাইমারি স্কুলগুলোর প্রায় ৫০ ভাগ শিক্ষার্থীই শিশু বলির আতঙ্কে স্কুলে আসেনি। উপস্থিতির হার আশঙ্কাজনকভাবে কমে যাওয়ায় শিক্ষকরা দুশ্চিন্তায় পড়েন। প্রত্যেক স্কুল থেকে কয়েকজন করে শিক্ষার্থীকে শিশু বলির জন্য নেওয়া হবে বলে স্কুলগুলোতে চিঠি পাঠানো হয়েছে এমন গুজবও রয়েছে। গুজবের সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করা যায়নি।

মহাকালী ইউনিয়নের কেওয়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সাহাবুদ্দিন জানান, গ্রামের সহজ-সরল মানুষের ওই বিশ্বাসকে পুঁজি করে কোন দুষ্টচক্র এ গুজব ছড়িয়ে দিয়েছে। আর গুজবে কান দিয়ে সর্বত্র দেখা দিয়েছে আতংক।


অভিভাবক অমল শেখ জানান, এ গুজব নিছক গুজব হলেও তা শিক্ষার্থীদের মনের মধ্যে গেঁথে গেছে। তাই আতঙ্কে ভুগছেন শিক্ষার্থীরা।

কে বা কারা এমন গুজব ছড়িয়েছে তা খতিয়ে দেখার দাবি করেছেন অভিভাবকরা। এ ধরনের গুজবের সঙ্গে জড়িতরা দেশ-জাতির শত্রু।

জাস্ট নিউজ

Leave a Reply