মাওয়ার ‘শেষ’ ঘাটও হুমকির মুখে

মাওয়ায় চালু থাকা একমাত্র ফেরি ঘাটটিও নদী ভাঙন ও তীব্র স্রোতের কারণে হুমকির মুখে পড়ায় গুরুত্বপূর্ণ এই নৌপথ দিয়ে ফেরি পারাপার পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর মাওয়া ঘাটের কর্মকর্তারা জানান, রবিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ১ নম্বর ফেরিঘাট আকস্মিক ভাঙনে পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এ সময় তীরের ১৫টি দোকানও হারিয়ে যায় নদীগর্ভে। পন্টুন ও তীরে থাকা শতাধিক লোকের মধ্যে বেশ কয়েকজন পদ্মায় ছিটকে পড়েন, যাদের মধ্যে ৫ জন সোমবার সকালেও নিখোঁজ।

এই পরিস্থিতিতে মাওয়ার পরিবর্তে পাটুরিয়া দিয়ে পারাপারের জন্য রাতেই যানবাহন চালকদের অনুরোধ জানায় বিআইডব্লিউটিএ।

এদিকে চালুর অপেক্ষায় থাকা নতুন ৪ নম্বর ঘাটেও রাতে ফাটল দেখা দিয়েছে। সচল থাকা ৩ নম্বর ঘাট দিয়ে রাতে ১৩টি ফেরি মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটে চলাচল করলেও সকালে এই ঘাটের নিচ থেকেও মাটি সরে যেতে শুরু করেছে বলে ঘাট কর্মকর্তারা জানান।


বিআইডব্লিউটিসির এজিএম আশিকুজ্জামান বলেন, “ভাঙনের কারণে গত ৯ অক্টোবর ২ নম্বর ঘাট বন্ধ হয়ে যায়। এর ৫ দিনের মাথায় ১ নম্বরও বিলীন হয়ে গেল। বিকল্প হিসাবে ৪ নম্বর ঘাটের কাজ চলছিল। রাতে সেটিতেও ফাটল ধরেছে। সব কিছু মিলিয়ে গোটা মাওয়ায় ভাঙন আতঙ্ক বিরাজ করছে।”

তিনি জানান, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা রাতে নদীতে নামলেও তীব্র স্রোতের কারণে উদ্ধার কাজ চালাতে পারেননি। সকালে আবারো নদীতে নেমে নিখোঁজ দোকানীদের খোঁজ করবেন তারা।

মাওয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য খন্দকার খালিদ জানান, নিখোঁজ ৫ জনের মধ্যে রয়েছেন- বাইরন মিয়া (৪৫) ও আবুল কাসেম (৬০) ও জানু মিয়া (৫০),আবুল কালাম (৫৫)। এরা সবাই মাওয়া ঘাটের দোকানদার ও মেদিনী মণ্ডল ইউনিয়নের কান্দিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

জেলা প্রশাসক মো. আজিজুল আলম জানান, বিআইডব্লিউটিএ চেয়াম্যানকে সার্বিক অবস্থা জানানো হয়েছে। ফেরি সচল রাখতে সবরকম চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে ভাঙ্গন রোধের ব্যবস্থা নিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

সোমবার সকালে ৩ নম্বর ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, অতি জরুরি যানবাহন ছাড়া কোনো গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে না। তবে অধিকাংশ যানবাহন পাটুরিয়ার দিকে চলে যাওয়ায় মাওয়া ঘাটে সকালে খুব একটা ভিড় চোখে পড়েনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর

Leave a Reply