টঙ্গীবাড়ীতে যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে সিগেরেটের আগুণ দিয়ে ছেকা

ব.ম শামীম: বাংলাপোষ্ট২৪/ই: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার চর ছটফটিয়া গ্রামে যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে সিকেরেটের আগুন দিয়ে ছেকাঁ দিয়েছে পাসন্ড স্বামী। এ ব্যাপারে স্ত্রী নিফা আক্তার (২০) বাদী হয়ে গতকাল রোববার টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

জানাগেছে, উপজেলার ছটফটিয়া গ্রামের মোঃ নাজিমউদ্দিন সেখের মেয়ে নিফা আক্তার এর সাথে একই উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের মোঃ শহিদুল ইসলাম সেখের ছেলে সবুজ সেখের সাথে ২০১০ সালে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

বিয়ের সময় নগদ এক লক্ষ টাকা ৫ ভরি স্বর্ন ও ৫টি ফার্নিচার যৌতুক হিসাবে দেওয়া হয়। কিন্ত বিয়ের পর হতেই আরো যৌতুকে জন্য নিফাকে মারধর করে আসছিলো তার স্বামী সবুজ সেখ ও শাশুরী ফরিদা বেগম। কিছু দিন আগেও বিদেশ যাওয়ার জন্য নিফার মায়ের স্বর্ন বিক্রি করে ৩ লক্ষ টাকা সবুজকে দেওয়া হয়।


গত ৩ই নভেম্বর রাতে সবুজ নিফাদের বাড়িতে গিয়ে গভীর রাতে নিফা কাছে আরো ১ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করে । এ সময় নিফা টাকা দিতে অস্বিকৃতি জানিয়ে বলে তুমি দির্ঘদিন যাবৎ আমায় পিতার বাড়ি ফেলে রাখছো। তোমাদের বাড়িতে নিচ্ছনা। এখোন বাবা মায়ের কাছে টাকা চাইলে তারা আমায় টাকা দিবেনা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সবুজ।

এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সবুজ নিফার মোখে কাপড় দিয়ে বেঁধে বুকের উপর বসে হাতে সিকেরেটের ছেকা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে নিফার চিৎকারে তার বাবা মা এগিয়ে এসে তাকে টঙ্গীবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করায়। এর জের ধরে গত ৭ই নভেম্বর হাসপাতালে এসে সবুজ ও তার কয়েক বন্ধু নিফার উপর হামলা চালায়।

এ সময় নিফা তাদের চোখ ফাকি দিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় । নিফা জানায়, সবুজ আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করছে। তার ভয়ে এতোদিন আমি থানায় মামলা দয়ের করতে পারি নাই । প্রাণ ভয়ে বিভিন্ন স্থানে আত্ম‌গোপন করে দিন কাটাচ্ছি।

Leave a Reply