মাওয়ার ভাঙন ঠেকাতে সোয়া লাখ তাবিজ…

মোজাম্মেল হোসেন সজল: বিধ্বস্ত মাওয়ার পদ্মার ভাঙন ঠেকাতে এবার এলাকাবাসী পীরের দোয়া নিয়ে নদীতে তাবিজ ফেলানোর কর্মসূচি পালন করেছেন। পদ্মা নদীতে প্রায় সোয়া ১ লাখ তাবিজ ফেলানো হয়েছে। বেলা সাড়ে ১২টা থেকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়াঘাট এলাকায় পীরের দোয়া পড়ার মাধ্যমে এসব তাবিজ ফেলানো হয়েছে নদীতে।

হাজী শরীয়াতুল্লাহর বংশধর বাহাদুরপুরের পীর সাহেব মাওলানা হাফেজ মো. আব্দুল্লাহ-আল হাসান দোয়া পড়ে নিজে উপস্থিত ছিলেন এ কর্মসূচিতে। মাওয়া দোকানদার মালিক সমিতি ও পদ্মার ভাঙন প্রতিরোধ কমিটি পদ্মার ভাঙন রোধে মাওয়াস্থ পুরাতন ৩ নম্বর ফেরিঘাটে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।


এ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন মাওয়া পুরাতন ঘাট দোকানদার মালিক সমিতির সভাপতি লাল মিয়া মাদবর, কান্দিপাড়া গ্রামের মো. আবুল কাশেম, মাজহারুল ইসলাম তুহিন, শাহ জামাল কালু, মাওলানা ফজলুল করিম, মাওলানা আবুল বাশার ফরাজী প্রমুখ। স্থানীয়রা জানান, মাদারীপুরের বাহাদুরপুর ও স্থানীয় যশলদিয়া পাকা মসজিদ, ব্যাপারী বাড়ি, মাওয়াঘাট, ছাতি বাড়ি মসজিদের ইমামসহ প্রায় ৩০ জন মাওলানা-ইমাম ও মুসল্লি একটি ট্রলারের মাধ্যমে পদ্মাবক্ষে সোয়া ১ লাখ তাবিজ ফেলেন। নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত ও ভাঙন কবলিত লৌহজং উপজেলার যশলদিয়া থেকে মেদিনীমণ্ডল, মাওয়া ও ঋষিবাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকার পদ্মায় এসব তাবিজ ফেলা হয়। তবে আগামী ৩ দিন পদ্মাতীরের এসব স্থানে মহিলাদের গোসল করা নিষেধ করা হয়েছে।

মানবজমিন

Leave a Reply