মাওয়ায় একটি ফেরিঘাট বন্ধ থাকায় তীব্র যানজট

মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের মাওয়া প্রান্তে ৩টি ফেরিঘাটের মধ্যে একটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যানবাহন পারাপারে মারাত্বক ব্যঘাত সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে ২টি ঘাট দিয়ে ফেরিতে যানবাহন পারাপার করায় মাওয়ায় দীর্ঘ যানজট নিত্য নৈমত্তিক ঘটনা হয়ে দাড়িয়েছে।

জানা গেছে, পদ্মা নদীতে নাব্যতা সঙ্কট দেখা দেওয়ায় ফেরি ভিড়তে না পারায় গত ৪দিন ধরে মাওয়া ঋষিবাড়ি ১নং ঘাটটি বন্ধ হয়ে যায়।

ঘাটটি চালু করতে বিআইডব্লিউটিএ ড্রেজিং কাজ শুরু করলেও পানি উপচে আশেপাশের বসতবাড়ি প্লাবিত হব‍ার কারণে স্থানীয় জনতার হামলায় তাও বন্ধ হয়ে গেছে।

এর ফলে মাওয়া ১নং ঘাটটি চালু করা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

তবে ড্রেজিং কাজ সম্পন্ন করার পর ফেরি অনায়াসে ঘাটে ভিড়তে পারবে বলে বাংলানিউজকে জানান, বিআইডব্লিউটিএর মাওয়া বন্দর কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

এদিকে বিআইডব্লিউটিসির মাওয়া কার্যালয়ের সহকারি মহাব্যবস্থাপক এস এম আশিকুজ্জামান জানান, একটি ঘাট বন্ধ হয়ে গেলে একটু সমস্যা হবেই।

বর্তমানে ২ ও ৩নং ঘাট দিয়ে ফেরি চলাচল করায় গাড়ি লোড-আনলোড করে পারাপার অব্যাহত থাকলেও অপেক্ষায় থাকা গাড়ির লাইন দীর্ঘ হয়ে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, বর্তমানে মাওয়া প্রান্তে ২টি ঘাট চালু থাকলেও সব ফেরিই (১৫টি) যানবাহন পারাপার কাজে নিয়োজিত আছে।

সংশ্লিষ্ট্র সূত্রে জানা গেছে, গত অক্টোবর মাসে পদ্মার ভাঙ্গনে পড়ে মাওয়া ফেরিঘাট ও আশপাশ এলাকা।

বর্তমানে একদিকে ঘনকুয়াশা অপরদিকে নাব্যতা সঙ্কটের কারণে মাওয়া ১নং ঘাট বন্ধ হয়ে প্রতিদিনই ঘন্টার পর ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকছে।

সূত্র আরও জানায়, অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে পদ্মার ভাঙ্গন শুরু হলে নৌরুটের মাওয়া প্রান্তের ৩টি ঘাট নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

এতে মাওয়া প্রান্তে বিকল্প স্থানে নতুন ৩টি ঘাট নির্মাণ করে ফেরি চলাচল শুরু করা হয়।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply