বাস চলাচল বন্ধ: শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠক করবেন নৌপরিবহন মন্ত্রী

চাদাঁ আদায়কে কেন্দ্র করে বিরোধের জের ধরে পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের দুটি সংগঠনের শ্রমিকরা কয়েকটি স্থানে বাধা দিয়ে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে সোমবার সকাল থেকে এ সড়কের যাত্রীরা সংকটে পড়েছেন।

এদিকে এ বিষয়টি সুরাহার জন্য নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান সোমবার দুপুরে দুই শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে পুলিশ ও শ্রমিক সূত্রে জানা গেছে।

শুক্রবার বিকেল থেকে চাদাঁ আদায় শুরু করলে শনিবার থেকে বিরোধে জড়িয়ে যায় স্থানীয় ও ঢাকার দুটি পরিবহন শ্রমিক সংগঠন। এরপর থেকে ঢাকা-মাওয়া সড়কে বেশ কয়েকটি পরিবহনের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

শ্রমিক সংগঠন সূত্র জানায়, দুই সংগঠনের মধ্যে শনিবার থেকে সমঝোতার চেষ্টা বিফল হয়ে যাওয়ায় সোমবার সকাল থেকে বাধা দিয়ে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় শ্রমিকরা। এছাড়া ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ সড়কেরও ২টি পরিবহনের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।


লৌহজং উপজেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিকরা শনিবার থেকে ৩০ টাকা করে শ্রমিকদের কল্যাণে চাদাঁ আদায় শুরু করলে ঢাকার একটি শ্রমিক সংগঠন (১৯৪) এতে বাধা দিলে বিরোধের সৃষ্টি হয়।

মাওয়া নৌ-ফাঁড়ির উপ-পরির্দশক (এসআই) খন্দকার খালিদ হোসেন জানান, শনিবার বাস চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ায় দুই শ্রমিক সংগঠনের নেতারা সমঝোতা বৈঠক করে। ওই বৈঠকে কোনো সুরাহা না হওয়ায় আবারও বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা।

এদিকে মহাসড়কে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় হাজারো যাত্রীকে সকাল থেকেই চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply