দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে দুই যুবদল নেতার বিরুদ্ধে নোটিশ

বিএনপির কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমানের মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কলমা গ্রামের বাড়িতে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা যুবদলের বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি করাকে নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার প্রতিবাদে মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদল টঙ্গীবাড়ি যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ঘটনার জবাব চেয়ে কারণ র্দশানোর নোটিশ প্রদান সহ ওই দুই যুবদল নেতাকে দলের সকল কার্যক্রম থেকে আপাতত অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘোষনা দেয়া হয়েছে। মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতি মো: তারেক কাশেম খান মুকুল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সম্্রাটের এক যৌথ স্বাক্ষরিত দলীয় পেইডে(কাগজে) এ কথা বলা হয়েছে।

জানা গেছে, ৫জানুয়ারী বিকালে লৌহজংয়ের কলমা গ্রামে মিজানুর রহমান সিনহার বাসভবনে টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিটের যুবদলের কমিটি গঠন প্রক্রিয়া নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে মারামারি ও মিজানুর রহমান সিনহা অবরুদ্ধ অবস্থায় ছিলেন এমন ঘটনা ঘটে। পরের দিন বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এ কবর প্রকাশ হলে মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদলের দৃষ্টি পড়ে এবং টনক ও নড়ে। আর এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের বিএনপি ও যুবদলের মধ্যেকার ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হলে জেলা যুবদলের পক্ষ থেকে ওই দুই নেতার বিরুদ্ধে কারন র্দশানোর নোটিশ দেয়। দলীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে টঙ্গীবাড়ির দুই যুবদল নেতার বিরুদ্ধে এ নোটিশ জারি করা হয়েছে।


এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতি মো: তারেক কাশেম খান মুকুল জানান, সেদিন এ জাতীয় কোনো ঘটনাই ঘটেনি। একটি মহল যুবদলের সঙ্গে জেলা বিএনপির খারাপ সর্ম্পক তৈরী হউক এমনটি চাচ্ছেন। তারা এ জন্যে ৫ তারিখের ঘটনাটির একটি অপ্রচার চালিয়েছেন। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সম্্রাট জানান, টঙ্গীবাড়ি উপজেলা যুবদলের বিভিন্ ইউনিটের কমিটি গঠন প্্রক্রিয়া নিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমানকে জড়িয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা ভিত্তিহীন। তিনি আরো বলেন, টঙ্গীবাড়ি উপজেলা যুবদলের সভাপতি শামীম মোল্লা এবং সাধারণ সম্পাদক মো: আলমগীরকে এ ঘটনার সত্যতা প্রকাশ করতে সোমবার কারন র্দশানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। তারা ১৫ দিনের মধ্যে কিছু না জানাতে পারলে দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক ওই দুইজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে এ ব্যাপারে কথা বলার জন্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমান সিনহার সঙ্গে মুঠোফোনে কয়েকবার যোগাযোগ করা হলে ও তিনি বক্তব্য দিতে অনীহা প্রকাশ করেছেন।

বেস্টনিউজবিডি

Leave a Reply