শ্রীনগর ও সিরাজদিখানে গুলিবিদ্ধ ৩ যুবকের লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে

আরিফ হোসেনঃ ঢাকা থেকে নিখোজ ৩ যুবকের চোখ-মুখ বাঁধা গুলিবিদ্ধ লাশ শ্রীনগর ও সিরাজদিখানের বিভিন্ন স্থান থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে সিরাজদিখান উপজেলার রশুনিয়া থেকে ইব্রাহিম (২২) ও ঈমামগঞ্জ এলাকা থেকে আঃ কদ্দুস (৪৫) এবং দুপুরে শ্রীনগর উপজেলার শ্রীধরপুর থেকে ড়াঢ়ী মাসুদ (৩৭) এর লাশ উদ্ধার করা হয়।এদের মধ্যে ইব্রাহিম ঢাকার জুড়াইন এবং মাসুদ ও কুদ্দুস কেরানীগঞ্জের আমবাগিচা এলাকার বাসিন্দা। পুলিশ জানায় তিনটি লাশই রাস্তার পাশ থেকে গুলি বিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। সিরাজদিখান থেকে উদ্ধারকৃত ইব্রাহিম ও কুদ্দুসের কপালে তিন রাউন্ড করে গুলির চিন্হ রয়েছে। তাদের গলায় নতুন গামছা পেচানো ছিল। শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, শ্রীনগরে উদ্ধারকৃত মাসুদের চোখ-মুখ নতুন গামছা দিয়ে বাঁধা অবস্থায় ছিল। তাকে পেছন দিক থেকে গলায় ও বুকের বাম পাশে তিন রাউন্ড গুলি করা হয়েছে।


সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মাহাবুবুর রহমান জানান, ইব্রাহিম কদমতলী থানার হত্যা মামলার আসামী। তার বাড়ি শ্রীনগর উপজেলার পাইলভোগ নওপাড়া গ্রামে। সে ঢাকার জুড়াইন এলাকায় তার মামার বাসায় থাকতো। ইব্রাহিমের মামা সালাউদ্দিন জানান, ইব্রাহিম গত ১৬ জানুয়ারী বাসা থেকে কাজে বের হয়ে আর ফেরত আসেনি।

মাসুদের স্ত্রী শায়লা জানায় মাসুদ ও কুদ্দুস গত ১০ জানুয়ারী একই এলাকার নাজমুলের কাছে পাওনা টাকা আনতে পোস্তগোলা যায়। এর পর থেকেই তারা নিখোজ হয়। বিভিন্ন স্থানে খোজ করে কোথাও তাদের সন্ধান না পাওয়ায় গত ১৪ জানুয়ারী দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়। কুদ্দুস কেরানীগঞ্জে জ্যাকেটের ব্যবসা করত। তার গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর জেলায়। মাসুদ তার চাচাত ভাইয়ের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার হিসাবে কর্মরত ছিল।

মুন্সীগঞ্জ মর্গে এসে তাদের স্বজনরা লাশগুলো সনাক্ত করেন ।

Leave a Reply