প্রবাসীরা একাট্টা…

japan probasiরাহমান মনি
১০ ফেব্রুয়ারি রোববার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে চারটায় টোকিও শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে জাপান প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিশাল এই প্রতিবাদ সমাবেশে সর্বস্তরের প্রবাসী অংশ নেয়। এই সমাবেশ কোনো রাজনৈতিক সংগঠনের আহ্বানে হয়নি। হয়েছে কিছুসংখ্যক সচেতন নাগরিকের পরস্পর পরস্পরের সঙ্গে এসএমএস, ই-মেইল কিংবা টেলিফোন যোগাযোগের মাধ্যমে।

মাত্র একটি ম্যাসেজ পেয়ে কিংবা কেবলমাত্র শুনে সম্পূর্ণ বিবেকের তাড়নায় দূর-দূরান্ত থেকে প্রবাসীরা ছুটে আসে টোকিও শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে। দাবি একটাই। রাজাকার যে-ই হোক তার সর্বোচ্চ দণ্ড অর্থাৎ মৃত্যুদণ্ডের আদেশ। সমাবেশে ছিল না কোনো রাজনৈতিক বক্তব্য, ছিল না কোনো অতিথি বিশেষ। শান্তিপূর্ণ এই সমাবেশে সকলের হাতে ছিল বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড। তার মূল কথা, কাদের মোল্লা, গোলাম আযম, সাঈদীসহ চিহ্নিত ঘৃণিত জল্লাদদের ফাঁসি, ফাঁসি এবং ফাঁসি চাই।


জাপান প্রবাসীরা বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আমরা অংশ নিতে পারিনি। সুযোগ ছিল না। আজকের নতুন প্রজন্ম রাজাকারমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার যে যুদ্ধ শুরু করেছে আমরা তাতে অংশগ্রহণ করতে চাই। একাত্মতা প্রকাশ করতে চাই। রাজাকারমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে জাতি হিসেবে কলঙ্কমুক্ত হতে চাই।
সমাবেশে সংসদে বিএনপি অনুপস্থিত ছিল। এই ব্যাপারে জাপান শাখা বিএনপির সঙ্গে যোগাযোগ করলে জাপান শাখা বিএনপি সেক্রেটারি জেনারেল মীর রেজাউল করীম রেজা বলেন, যুদ্ধাপরাধী-বিচারে বিএনপির সমর্থন অবশ্যই আছে। আমরা কেন্দ্রের নির্দেশনা মেনে কেন্দ্রকে অনুসরণ করে দল পরিচালনা করি। দল হিসেবে আমরা অবশ্যই নতুন প্রজন্মের সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত। তবে এর সঙ্গে সঙ্গে আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার বহালসহ অন্য দাবিগুলোও নতুন প্রজন্মের মুখে আহ্বান জানাই।
japan probasi
কিন্তু টোকিও সমাবেশ তো কোনো দলের আহ্বানে হয়নি, হয়েছে জাপান প্রবাসী সচেতন নাগরিকদের আহ্বানে এমন প্রশ্নের জবাবে জনাব রেজা বলেন, আমাদের কাছে তথ্য ছিল যে, সচেতন নাগরিক সমাজের নামে অন্তরালে একটি দল কাজ করছে এবং হয়েছেও তাই। আমাদের লোক ছিল ওখানে তারা দেখেছে সেই বিশেষ দলটি সচেতন নাগরিক সমাজের নামে জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগানে মুখরিত করেছে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ। বাংলাদেশেও তারা কলকাঠি নেড়ে নিয়ন্ত্রণ নেয়ার চেষ্টা করছে। কিন্তু স্বীয় কাজের জন্য মন্ত্রীরা সেখানে গিয়ে অপদস্ত হচ্ছেন।
রাজনীতি যা-ই থাকুক না কেন নতুন প্রজন্ম চায় কলঙ্কমুক্ত বাংলাদেশ। যুদ্ধাপরাধী যে দলেই থাকুক না কেন আইনের আওতায় এনে সঠিক বিচার হোক এটাই জাপান প্রবাসীদের একমাত্র কামনা।

rahmanmoni@gmail.com

সাপ্তাহিক

Leave a Reply