প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারিসহ ৪০ টি পরিবারের ঝুকিপূর্ন বসবাস

vangan2শ্রীনগরে পরিত্যক্ত জমিদার বাড়িতে
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে পরিত্যক্ত জমিদার বাড়িতে প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারিসহ ৪০ টি পরিবার মারাতœক ঝুকি নিয়ে বসবাস করছে। দীর্ঘ দিন ধরে উপজেলা কার্যালয় থেকে মাত্র ৫০ গজের মধ্যে এসব পরিবার বসবাস করলেও প্রশাসনের কোন মাথাব্যাথা নেই। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় এক একর জমির উপর সোনরগাওা পানাম নগরের আদলে নির্মিত দোতলা এ চৌকোনা ভবনটিতে বড় বড় প্রায় ২৫ টি ফাটল দেখা দিয়েছে। এর মধ্যেই ঝুকি নিয়ে বসবাস করছে পরিবার গুলো। ভবনের একপাশে উপজেলা চেয়ারম্যান ও অপর পাশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আধুনিক বাসভবন। কিন্তু পরিত্যাক্ত ও ঝুকিপূর্ণ এ ভবনটিরদিকে তাদের নজর পড়েনা।


এলাকাবাসী জানায়, জমিদার রাধাকান্ত শাহ এর বাড়িটিতে আশির দশকে শ্রীনগর উপজেলা প্রশাসনের অফিস হিসাবে ব্যবহৃত হয়। পরে উপজেলা কার্যালয় নতুন ভবনে স্থানান্তর করার পর প্রশাসনের কর্মকর্তারা এটিকে বাসভবন হিসাবে ব্যবহার শুরু করে। ভবনের বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় ফাটল দেখা দেওয়ায় পনের বছর আগে পিডব্লিউডি ভবনটিকে পরিত্যাক্ত ঘোষনা করে। এর পরপরই বসবাসরত পরিবার গুলোকে ভবন ছেড়ে দিতে বলা হয়। কিন্তু জেলার বাইরে বদলি না হলে কোন কর্মকর্তা কর্মচারি ভবন ছেড়ে যান না। অপর একটি সূত্র জানায়, সরকারী এ ভবনে বিনা ভাড়ায় বসবাস করলেও কর্মকর্তারা বাড়ি ভাড়া বাবদ অর্থ উঠিয়ে নিচ্ছেন।

vangan1

vangan2

Leave a Reply