সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী সিনহার বাসভবনে হামলা, ভাঙচুর

Sinshaসাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সিনহার মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে গ্রামের বাড়িতে হামলা করেছে একদল সন্ত্রাসী। এ সময় বাড়ির ১০-১২ জন কেয়ারটেকারকে মারধর করা হয়েছে। বুধবার রাত ৭টার দিকে লৌহজংয়ের কলমা ইউনিয়নের ডহুরি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। বিকাল ৪টায় বালিগাঁও বাজার থেকে মিছিল নিয়ে বিএনপি সিনহার বাড়ি পর্যন্ত যাওয়ার কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। কাল শুক্রবার লৌহজং উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে স্থানীয় বিএনপি প্রতিবাদ সমাবেশ আহ্বান করেছে।


জানা গেছে, ডহুরি গ্রামের আওয়ামী লীগ সমর্থিত আবুল বাসারের বখাটে ছেলে লিপু বান্ধবী নিয়ে সন্ধ্যায় সিনহার বাগান বাড়িতে প্রবেশের চেষ্টা চালায়। এ সময় বাড়ির কেয়ারটেকার রতন, বেলায়েত বাঁধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রাত ৭টার দিকে দুলাল বাসারের ছেলে লিপু ও মামুনসহ ২০-৩০ জনের একদল সন্ত্রাসী নিয়ে সিনহার বাগান বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় কেয়ারটেকার রতন কুমার রায়, বেলায়েত ও বাসারকে মারধর করে বাড়ির ভেতর ঢুকে পড়ে। ভেতরে প্রবেশ করে দুবৃর্ত্তরা সিনহার বাসভবনের দরজা-জানালা, গ্লাস, আসবাবপত্র ভাঙ্‌চুর করে। এ ব্যাপারে মিজানুর রহমান সিনহা বলেন, আমার বাড়িতে এ ধরণের ঘটনা কখনো ঘটেনি। আমার বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা হলে সাধারণ মানুষ বাঁচবে কিভাবে। এ ব্যাপারে লৌহজং থানার ওসি এস এ খালেক জানান, ডহুরি গ্রামের লিপুর সঙ্গে সিনহা সাহেবের বাড়ির কর্মচারিদের বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে। তার বাড়ির কয়েকটি জানালার গ্লাস হালকা পাতলা ভাঙচুর করা হয়েছে।

জাস্ট নিউজ
=======

সাবেক প্রতিমন্ত্রী মিজানের লৌহজংয়ের বাড়িতে ভাঙচুর

তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমান সিনহার মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কলমা ইউনিয়নের ডহুরী গ্রামের বাড়িতে ভাঙচুর করেছে একদল উচ্ছৃঙ্খল যুবক।

বুধবার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় লৌহজং উপজেলার কলমা ইউনিয়নের ডহুরী গ্রামের সিনহার বাড়ির কেয়ারটেকার রতনকে (৩৫) মারধর করা হয়।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে কেয়ারটেকার রতন বাদী হয়ে লৌহজং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, ডহুরী গ্রামের দুলাল বাসারের ছেলে লিটু বাশার তার কয়েকজন বন্ধুদের নিয়ে বুধবার সন্ধ্যার পর সাবেক প্রতিমন্ত্রীর বাড়িতে যান। এ সময় বাড়ির নৈসর্গিক ও নয়নাভিরাম চিত্র ও ফুলের বাগান ঘুরে-ফিরে দেখতে থাকেন।

এ সময় সন্ধ্যা ঘনিয়ে অন্ধকার নামতেই বাড়ির কেয়ারটেকার রতন ও দারোয়ান বেলায়েত লিটু বাশার ও তার বন্ধুদের বাড়ির আঙিনা ছেড়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। এ নিয়ে তাদের সঙ্গে বাড়ির কেয়ারটেকারের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও তাকে লাঞ্ছিত করা হয়।

এর জের ধরে ৩০-৩৫ জনের একদল যুবক সংগঠিত হয়ে সাবেক ওই প্রতিমন্ত্রীর বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় কেয়ারটেকার রতনকে মারধর ও বাগানের ফুলের টব, ফুলের চারা, দরজা ও জানালার কাঁচ ভাঙচুর করে।

এ প্রসঙ্গে লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকিউর রহমান জানান, দাখিল করা অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply