মুন্সীগঞ্জে আকাশে রংধনু সাত রঙা সে এক বিরল সূর্য !

সকাল বেলার সূর্যটা যেন একটু অন্যরকম। কেননা, সূর্য-বলয়ে গোলাকার বৃত্তে সেজেছে রংধনুর সাত রং। মুন্সীগঞ্জ শহরের আকাশে রংধনুতে সাজানো এক বিরল সূর্য দেখা গেছে গতকাল শনিবার। দীর্ঘ এক ঘন্টা সূর্য-বলয় ঘিরে রংধনুর সাত রংয়ের এক অভূতপূর্ব দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়। সূর্য বলয়ে গোলাকার রংধনুর বিরল দৃশ্য স্বচক্ষে দেখে বিমোহিত-বিমুগ্ধ মুন্সীগঞ্জ শহরবাসী। জীবনের এই প্রথম আকাশের পানে চেয়ে খালি চোখে সূর্য ঘিরে রংধনুর দৃশ্য দেখতে পেয়েছে মানুষ। গোলাকার বৃত্ত ঘিরে সাত রংয়ে সজ্জিত সূর্য দেখে অবাক বিস্ময়ে আকাশ পানে চেয়ে থাকেন শত শত নারী-পুরুষ। শনিবার সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত সূর্যের চারপাশে ওই রংধনুর ছায়া দেখা গেছে। কৌতুহলী নারী-পুরুষ অবাক হয়ে বিভিন্ন সড়কে ও বাড়ির উঠোনে দাঁড়িয়ে সূর্যের বলয়-ঘিরে রংধনু সাঁজার ওই দৃশ্য দেখতে পেয়েছেন। শহরের উপকন্ঠ মুক্তারপুর ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতুর উপর থেকে সূর্যের চারপাশে গোলাকার রংধনু দেখতে অনেকেই ভীড় জমায়। প্রখর রোদ থাকা সত্বেও সূর্যের চারপাশে গোল চিহ্নিত ওই রংধনু দেখে নেন সবাই। এ দৃশ্য শহরের জুবলী রোডে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব সংলগ্ন সদর থানার পুকুর পাড়ে দাঁড়িয়ে আকাশের দিকে তাকাতেই সূর্যের গোলাকার বলয়-ঘিরে সাত রংয়ের রংধনুর অপূর্ব এক সূর্য দেখেছেন অনেকেই।


প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষক মো. রিয়াজুল হক জানান, সূর্যের চারপাশে রংধনুর সাত রংয়ে মনের ভেতর সত্যি এক অভূতপূর্ব শিহরন জেগে উঠে। সবাই অবাক-কি দৃশ্য চোখে দেখছেন তারা। এই প্রথমবার সূর্যের ভেতর রংধনু দেখতে পেলাম-এমন মন্তব্য করেন শহরের অনেকেই। এ এক বিরল সূর্যের দেখা পেলাম বলে মন্তব্য করেন প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক-কবি সংস্কৃতি কর্মী আনমনা আনোয়ার ও কবি সুমন ইসলাম। অবাক-বিস্ময়ও প্রকাশ করেন তারা। অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে অধিকাংশ প্রত্যক্ষদর্শীই বলেন- প্রকৃতির এক নয়নাভিরাম চিত্র এটি। এটা সবার জন্য উপহার বটে, রংধনুর সাত রংযে- এ এক বিরল সূর্য।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি

Leave a Reply