বিপদসীমায় পদ্মা : মাওয়ায় ফেরি পারাপার ব্যাহত

মাওয়া ও শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল পয়েন্টে ১২ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এরই মধ্যে ভাগ্যকুল পয়েন্টের বিপদসীমার মাত্র ৪০ সেন্টিমিটার নিচে পদ্মায় পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ব্যাহত হচ্ছে নৌরুটের ফেরি পারাপার।

জেলার শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার পৃথক দুটি পয়েন্টে প্রতিদিন পদ্মায় পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে পদ্মায় প্রচন্ড স্রোতের কারণে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ডাম্পু ফেরি, রো-রো ফেরিগুলো আগের তুলনায় নদী পারাপারে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট সময় বেশি নিচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

এ হারে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রমসহ একই সাথে নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হতে শুরু করবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।


বুধবার ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে ১২ সেন্টিমিটার করে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মাওয়া পয়েন্টে ৫ দশমিক ৩৮ মিটার থেকে ৫ দশমিক ৫০ মিটার এবং ভাগ্যকুল পয়েন্টে ৫ দশমিক ৭৮ মিটার থেকে ৫ দশমিক ৯০ মিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

মাওয়া বিআইডব্লিউটিসির ম্যানেজার (বাণিজ্য) সিরাজুল হক জানান, মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে পদ্মায় প্রচন্ড স্রোতের কারণে ফেরিগুলো চলাচলে বাধা সৃষ্টি হচ্ছে। যে কারণে পারাপারে অতিরিক্ত সময় লাগছে ৩০-৪০ মিনিট ।

জাস্ট নিউজ

Leave a Reply