র‌্যাবের অভিযানে এক হাজার কেজি টিএন্ডটি তার সহ গ্রেপ্তার ১

শ্রীনগরে আন্তঃজেলা চোরাই তার চক্রের মূল হোতা এক আওয়ামী লীগ নেতা
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে আন্তঃ জেলা চোরাই তার চক্রের সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব। গত সোমবার রাত একটার দিকে উপজেলার কোলাপাড়া এলাকা থেকে তার চোরাই কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রাকসহ ইসহাক হোসেন বাবু (৩০) নামে একজনকে গ্রেপ্তারের পর এ চক্রটির মূল হোতা স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতার সন্ধান পাওয়া গেছে বলে র‌্যাব জানায়। বাবুকে গ্রেপ্তারের সময় চক্রের মূল হোতা কোলাপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রসুল (৫৫) ও তার সহযোগী মো: রিপন (৩৮) অল্পের জন্য র‌্যাবের হাত থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে বাবুর দেওয়া তথ্য মতে নাওপাড়া এলাকায় ৪ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে পানির নিচ থেকে এক হাজার কেজি টিএন্ডটির তার উদ্ধার করা হয়।


র‌্যাব-১১ ভাগ্যকূল ক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, গোলাম রসুল আন্ত: জেলা চোরাই তার চক্রের মূল হোতা। তার বিরুদ্ধে নারায়নগঞ্জ থানায় বৈদ্যুতিক তার চুরির মামলা রয়েছে। র‌্যাব আরো জানায়, সোমবার রাত বারটার দিকে তাদের কাছে খবর আসে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সমষপুর বাস ষ্ট্যান্ড থেকে আধ কিলোমিটার পশ্চিমে কোলাপাড়া এলাকায় একটি ট্রাক থেকে চোরাই তার নামানো হচ্ছে। রাত একটার দিকে র‌্যাবের একটি টিম ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে চোরাই কাজে ব্যবহৃত ট্রাক (খুলনা মেট্রো-ড ১১-০১৮০) সহ চক্রের সদস্য বাবুকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তার চোর চক্রের মূল হোতা বাবুর শশুড় গোলাম রসুল ও তার সহযোগী রিপন পালিয়ে গেছে বলে র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে বাবু জানায়। পরে বাবুর দেওয়া তথ্য মতে দেড় কিলোমিটার দূরে চার ঘন্টা অভিযান চালিয়ে পানির নিচ থেকে প্রায় এক হাজার কেজি টিএন্ডটির তার উদ্ধার করা হয়। যার দৈর্ঘ চারশ ফুট ও ব্যাস তিন ইঞ্চি এবং আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ছয় লাখ টাকা।


বাবু র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তারা দেশর বিভিন্ন স্থান থেকে টিএন্ডটি ও বৈদ্যুতিক তার চুরি করে প্রথমে কোলাপাড়া এলাকায় নিয়ে আসে । পরে প্লাষ্টিক ছাড়িয়ে কপার বের করে ঢাকার মিডফোর্ড এলাকার বিভিন্ন ভাংগারির দোকানে ছয়-আট শ টাকা কেজি হিসাবে বিক্রি করে। সর্বশেষ তারা ঈদের দুইদিন আগে সাভার এলাকা থেকে দুই শত কেজি টিন্ডটির তার চুরি করে এনে প্লাষ্টিক ছাড়িয়ে বিক্রি করে। এর আলামাতও উদ্ধার করা হয়েছে বলে র‌্যাব জানায়।

এব্যাপারে র‌্যাব-১১ ভাগ্যকুল ক্যাম্প কমান্ডার এএসপি ওবায়দুল ইসলাম জানান,বাবুকে শ্রীনগর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। উদ্ধার কৃত মালামাল কোথা থেকে আনা হয়েছে তা সন্ধান করা হচ্ছে। চক্রের মূল হোতা ও পালিয়ে যাওয়া আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তাদের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় মামলা করা হয়েছে।

Leave a Reply