সরকারের এক চোখতো কানা : শ্রীনগরে মানববন্ধনে বৃদ্ধার ক্ষোভ

shuman-chainআরিফ হোসেন: শ্রীনগরে পুনর্বাসনের দাবীতে নদী ভাঙ্গন কবলিত ৭০ টি পরিবার মানববন্ধন করেছে। সোমবার বেলা এগারটার দিকে শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের সামনে নদী ভাঙ্গন কবলিত ৭০ টি পরিবারের তিন শতাধিক নারী-পুরুষ ও তাদের সন্তানরা এতে অংশ গ্রহন করে। এসময় মনোয়ারা বেগম (৫৫) নামে এক নারী ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, প্রভাবশালীদের দিকে সরকার চোখ দিতে পারেনা। সরকারের এক চোখতো কানা। আমরা পচিঁশ বছর ধরে এখানে বসবাস করছি। সরকার আমাদের উচ্ছেদ করছে কিন্তু সরকার তাদেরকে কিছূ বলছে না।
shuman-chain
মানববন্ধনে দাড়ানো অপর এক আশি বছরের বৃদ্ধ দাদন ফকির বলেন নদী আমাগো সব নিছে । এখন সরকার নিতাছে,আমারা কই যামু?

রাজন চোকদার (৫৫) জানান , নদীতে তাদের ঘর বাড়ি ভেঙ্গেনিয়ে গেলে প্রভাবশালীদেরকে টাকা দিয়েই তারা এখানে ঘর তুলেছেন। আর সরকার এখন প্রভাবশালীদের দেখছে না।

এসময় তারা আরো জানান ৭০টি পরিবারের সবাই নদী ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারিয়ে এখানে প্রায় ৩ একর অর্পিত সম্পত্তির উপর বাড়িঘর নির্মান করে বসবাস করে আসছে। বর্তমানে এখানে সরকার ইনষ্টিটিউট অব-হেলথ টেকনোলজী নির্মানের জন্য প্রায় সাড়ে তিন একর জমি অধিগ্রহন করে তাদের উচ্ছেদ করতে চাচ্ছে। অথচ এর পাশে আরো ১২ একর অর্পিত সম্পত্তি প্রভাবশালীদের দখলে খালি পরে রয়েছে। ইতিমধ্যে নদী ভাঙ্গন কবলিত বাস্তহারাদের উচ্ছেদের নোটিশ দেওয়া হলেও প্রভাবশালীদের দখলকৃত জায়গায় এর কোন প্রভাব পড়েনি। এব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে চার মাস আগে আবেদন করা হলে তিনি সরজমিনে পরিদর্শন করে বাস্তহারাদের বসবাসের জায়গা বাদ দিয়ে স্থানীয় ভূমি অফিসকে পুনরায় প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু বর্তমানে প্রভাবশালীরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে তাদেরকে ভিটে ছাড়া করার পায়তারা করছে।

এব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা কমিশনার (ভূমি) হুরে জান্নাতের কাছে জানতে চাইলে তিনি স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি।

=============


শ্রীনগরে নদীভাঙন কবলিতদের মানববন্ধন

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে পুনর্বাসনের দাবিতে মানববন্ধন করেছে নদীভাঙন কবলিত ৭০টি পরিবার।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের সামনে নদীভাঙন কবলিত ৭০ পরিবারের তিন শতাধিক নারী-পুরুষ এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

ভাঙন কবলিত এ পরিবারগুলো সর্বস্ব হারিয়ে বর্তমানে অর্পিত সম্পত্তিতে ঘরবাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করলেও এ সম্পত্তি ইনস্টিটিউট অব-হেলথ টেকনোলজি নির্মাণের জন্য সরকারের অধিগ্রহণ করার প্রক্রিয়ার প্রতিবাদে ও পুর্নবাসনের দাবিতে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে পরিবারগুলো।

মানববন্ধন শেষে নদীভাঙনের শিকার রাজন চোকদার নামের এক বৃদ্ধ জানান, নদীভাঙনে সর্বস্ব হারিয়ে তারা তিন একর অর্পিত সম্পত্তিতে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন।

ভাঙন কবলিতরা জানান, এই সম্পত্তির পাশেই ১২ একর পরিমাণ অর্পিত সম্পত্তি প্রভাবশালীদের দখলে খালি পড়ে থাকলেও তা উদ্ধারে কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না প্রশাসন।

তারা অভিযোগ করেন, চার মাস আগে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করা হলে তিনি বাস্তহারাদের বসবাসের জায়গা বাদ দিয়ে স্থানীয় ভূমি অফিসকে দাখিল করা প্রতিবেদন পুনরায় তৈরির নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি তাদের উচ্ছেদ করতে নোটিশ দিয়েছে প্রশাসন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply