পুলিশ কর্মকর্তার খুনি পেশাদার: আটক ৪

fazlul karimরাজধানীর রামপুরায় সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ফজলুল হক হত্যাকাণ্ডের মোটিভ উদ্ধারে নিহতের চালক ও বাড়ির সামনের দুই দোকানদারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এছাড়া রামপুরার স্থানীয় এক যুবক গোয়েন্দা পুলিশের এক সময়ের সোর্স সেলিম ওরফে কলা সেলিমকেও আটক করা হয়েছে।

অন্যদিকে পুলিশের দৃষ্টিতে হত্যাকাণ্ডের সন্দেহভাজন নিহতের এক গৃহকর্মীকে খোঁজা হচ্ছে। ওই গৃহকর্মী গত ১৮ আগস্ট এ বাসায় যোগ দিয়ে ৩-৪দিন পর চাকরি ছেড়ে দেয়। এ তথ্য নিহতের ডায়েরীতে পেয়েছে পুলিশ। নিহত ফজলুল করিম ডায়েরীতে দিনলিপি লিখতেন। হত্যার মোটিভ উদ্ধারে ওই ডায়েরী ঘেঁটে দেখছে পুলিশ।


অন্যদিকে হত্যাকাণ্ডে ৩ ভাড়াটে খুনি অংশ নিয়েছে বলে নিহতের স্বজনরা জানান। তবে এ খুনিরা পেশাদার বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ ও ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকরা। তারা বলছেন, যে ভাবে গুলি করা হয়েছে, হাত পাকা না হলে এটা সম্ভব হত না।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকালে রামপুরা ওয়াপদা রোডের নিজ বাসায় ঢুকে তিন দুর্বৃত্ত গুলি করে পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত সুপার ফজলুল করিমকে হত্যা করে।

এদিকে শুক্রবার রাতে এ ঘটনায় রাতে মামলা হতে পারে বলে জানিয়েছে রামপুরা থানা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, এ হত্যা রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, ঘটনার দিন রাতে গোয়েন্দা পুলিশ নিহতের গাড়িচালককে গ্রেফতার করে। ওই চালক দেড় মাস আগে কাজে যোগদান করেন। এছাড়া র‌্যাব নিহতের বাসার সামনের দুই দোকানদারকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে বলেও জানান তারা।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ওয়াপদা রোড থেকে কলা সেলিমকে আটক করে নিয়ে যায় গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল। কলা সেলিম এলাকায় মাদক ব্যবসা ও বাসা বাড়িতে মিনি পতিতালয় ব্যবসায় জড়িত। নিহতের বাড়ি সংলগ্ন সেলিমের দুটি স্পট রয়েছে। এ নিয়ে তার সাথে সেলিমের কোন দ্বন্দ্ব রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে গোয়েন্দাদের একটি সূত্র জানিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, এছাড়া সম্প্রতি একুশে টেলিভিশনে একটি মিনি পতিতালয় নিয়ে সরেজমিন প্রতিবেদন প্রচারিত হয়। ওই প্রতিবেদনে একটি মিনি পতিতালয়ে ক্যামেরার সামনে ধরা পড়ে সেলিম। এ সময় সে নিজেকে ২২ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সেক্রেটারি শাওন পরিচয় দেয়। যদিও সেলিম শাওনের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ।

এদিকে এ বিষয়ে গোয়েন্দা পুলিশ আনুষ্ঠানিক কিছু বলতে রাজি নন। গোয়েন্দা পুলিশের ভাষ্য, মামলাটির ছায়া তদন্ত করছেন তারা।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply