মুন্সীগঞ্জে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা বর্জন

Munshigonj-polytechnicদুই দফা দাবি আদায়ে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ৪২০ জন শিক্ষার্থী ফাইনাল পরীক্ষা বর্জন করেছেন। রোববার সকাল ১০টায় শুরু হওয়া পরীক্ষায় অংশ না নিয়ে শিক্ষার্থীরা তা বর্জনের ঘোষণা দিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে।

মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ নিহার রঞ্জন সাহা বাংলানিউজকে জানান, পূর্বঘোষিত সময়ের মধ্যে পরীক্ষা শুরু হওযার কথা থাকলেও তা বর্জন করায় পরীক্ষা হয়নি।


এদিকে, আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, দুই দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া এ আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর
=============

মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটশনে বিক্ষোভ মিছিল ও পরীক্ষা বর্জন

আজ রবিবার সকাল হতে পদন্নোতির কোঠা ৩৩% থেকে ৫০% বর্ধিত এবং বেতন বৈষম্য দুর করার জন্য দুই দফা দাবীতে মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটশন চত্বরে অগ্নি সংযোগ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র-শিক্ষক সংগ্রাম পরিষদ। এ সময় তারা অধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও করে রাখে। নানা স্লোগান দেয় শিক্ষার্থীরা । এছারাও গতকাল শনিবার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা পলিটেকনিকে অগ্নি সংযোগ ও বিক্ষোভ সমাবেশ এবং প্রায় শতাধিক গ্লাস ভাংচুর করেছে রাতে পলিটেকনিক মুল গেইটে ওয়্যারলিং করে বন্ধ করে দিয়েছে। সকালে পুলিশের উপস্থিতিতে ভেংগে গেইট খুলে দেওয়া হয়।
Munshigonj-Polytechnic29
পরিস্থিতি মোকবেলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বাংলাদেশ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র-শিক্ষক সংগ্রাম পরিষদের মুন্সীগঞ্জ জেলার আহবায়ক মোঃ আব্দুর রশিদ জানান, দাবী না মানা পর্যন্ত এ আন্দোলন চলবে। সারা দেশে রবিবার ৩০ হাজার শিক্ষার্থী তাদের পরীক্ষা বর্জন করেছে। মুন্সীগঞ্জে ৪’শ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা বর্জন করেছে। তিনি আরও বলেন আমাদের যৌক্তিক দাবী মানতে হবে। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশ খবর ডট কমকে বলেন, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের সুপার ভাইজার হিসাবে সজ্ঞায়িত না করে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে মর্যাদা দিতে হবে এবং সাধারণ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারদের সরকারি প্রশাসনিক পদে নিয়োগ না দিয়ে জেনারেলিষ্টদের নিয়োগ দিতে হবে বলে দাবী জানান তারা।
এছাড়া যে কোন পরিস্থিতি মোকবেলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ খবর

Leave a Reply