গজারিয়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২৫

sআধিপত্য বিস্তার নিয়ে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার টেঙ্গারচর এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় চারটি বসতঘরে অগ্নিসংযোগ, দুইটি বসতঘর ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে শাহ আলম (৩৪), চঞ্চল (২৬), তোফাজ্জল হোসেন (২৫), ফাতেমা বেগম (৪৮), রনি (২৮), মুক্তার (২৫), আবু তালেব (৪৫), মহসিন (৩৫) ও রুবেলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অপর আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

পরে খবর পেয়ে গজারিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। বর্তমানে টেঙ্গারচর গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের বিরোধ ও রায়হান নামে এক যুবক নিহত হওয়ার ঘটনার জের ধরে এলাকার মতিন ডাক্তার ও গাফ্ফার মেম্বারের পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষ ঘটে।

পুলিশ জানায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পূর্ব বিরোধের জের ধরে টেঙ্গারচর গ্রামের গাফ্ফার মেম্বার ও সাত্তার মিয়ার নেতৃত্ব একদল গ্রামবাসী প্রতিপক্ষ মতিন ডাক্তারের বাড়িতে হামলা চালায়।


এ সময় মতিন ডাক্তার, মজিবর পুলিশ, আব্দুর রব ও জাহাঙ্গীরসহ বেশ কয়েকজনের বসতঘরে আগুন ধরিয়ে দিলে ঘরগুলো সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

পরে মতিন ডাক্তার তার লোকজন নিয়ে প্রতিপক্ষের বসতবাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তারা নুর মোহাম্মদ, আবুল কালাম, আবু তালেব, রায়হান ও কাসেম মিয়ার বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে।

গজারিয়া থানার পরিদর্শক মো. ফরিদউদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর
=============

মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সংঘর্ষে আহত ২০

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া আওয়ামীলীগ ও বিএনপি সমর্থিত দু’গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় ১ টি মসজিদ ও ৭ টি বসত-ঘরে অগ্নিসংযোগ করা হয়। আহত হাজেরা বেগম (৩০), মহসিন মোল্লাকে (৩৮) ভবেরচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও অপর আহত শাহ-জালাল (৩৫), তোফাজ্জল (২৫), ফাতেমা (৪৫), আব্দুল সালামকে (৬০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকী আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ২ ঘন্টাব্যাপী জেলার গজারিয়া উপজেলার টেঙ্গারচর গ্রামে টেঙ্গারচর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাহফুজ সরকার ও একই গ্রামের বিএনপি কর্মী ও ইউপি সদস্য মো. গাফ্ফার মেম্বারের লোকজনের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন-অর-রশীদ জানান, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে টেঙ্গারচর বাজারে বিএনপি কর্মী মহসিন মোল্লাকে আওয়ামী লীগ কর্মীরা মারধর করলে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। পরে টেঙ্গারচর জামে মসজিদ, বিএনপি কর্মী মহসিন মোল্লা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজ সরকার, দলীয় কর্মী মজিবুর রহমান, আব্দুর রব ও মামুনের বসত-ঘরে পাল্টা-পাল্টা অগ্নিসংযোগ করে। এছাড়া উভয় গ্রুপের লোকজনই পাল্টা-পাল্টি হামলা করলে কয়েক দফায় দফায় সংঘর্ষ বাঁধে। বর্তমানে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি

Leave a Reply