মুন্সীগঞ্জে যুবলীগ নেতা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়নি সন্ত্রাসীরা

ratanpur al3মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জে যুবলীগ নেতা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কেউ গ্রেপ্তারও হয়নি। এ নিয়ে পরিবারের মধ্যে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। যুবলীগ নেতা সাদেকুল ইসলাম সাদেক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এমটিনিউজ২৪.ডটকম গতকালও সংবাদ আপডেট করেছিল।

সন্ত্রাসীরা যুবলীগ নেতা সাদেকুল ইসলাম সাদেককে (৪২) গুলি করে হত্যা করে। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের রতনপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সাদেক পঞ্চসার ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। সাদেক রতনপুর গ্রামের আলী সিদ্দিক শেখের ছেলে। এ ঘটনায় বুধবার নিহতের স্ত্রী আসমা বেগম বাদী হয়ে একই এলাকার নূর হোসেন, আনোয়ার হোসেন, হাদিস আলী ও তার ছেলে টিটুসহ ১০ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।


মুন্সীগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহীদুল ইসলাম এমটিনিউজ২৪কে জানান, পূর্ব শক্রতার জের ধরে রতনপুর এলাকায় রাত ৮টার দিকে মান্নান চোকদারের ছেলে নূর হোসেন, আনোয়ার হোসেন, হাদিস আলী ও তার ছেলে টিটুর সঙ্গে সাদেকের কথা কাটাকাটি হয়।

এসময় নূর হোসেন গং সাদেককে লক্ষ্য করে গুলি ও এলোপাতাড়ি কোপায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সন্ত্রাসী টিটু রামপালের অন্যতম শীর্ষ সন্ত্রাসী খসরুর সহযোগী বলে জানা গেছে।

এদিকে এ ঘটনায় কেউ গ্রেপ্তার হয়নি বলে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ডিউটি অফিসার এএসআই মো. সিরাজ জানিয়েছেন।

এমটিনিউজ২৪
===============

মুন্সীগঞ্জ যুবলীগ নেতা হত্যাকান্ডে স্ত্রীর হত্যা মামলা দায়ের

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সাদেকুল শেখ (৪০) হত্যাকান্ডের ঘটনায় বুধবার দুপুরে নিহতের স্ত্রী আসমা বেগম বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, দুপুর ১ টার দিকে বিএনপি সমর্থিত ১০ কর্মীকে আসামী করে এ হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের প্রধান ঘাতক পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী হাদিস আলীর ছেলে টিটু আলীকে প্রধান অভিযুক্ত করে এ হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।


এদিকে, মঙ্গলবার রাতে হত্যাকান্ডের পর আটক সবুজ শেখ নামে যুবককে বুধবার দুপুরে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সবুজ শেখের বিরুদ্ধে নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয় বলে দাবী করেন ওসি (তদন্ত) ইয়ারদৌস হাসান।

তিনি জানান, বুধবার সকালে নিহতের লাশের ময়নাতদন্ত মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে সম্পন্ন হয়েছে। নিজ বাড়ি রতনপুর গ্রামে দুপুরে লাশ দাফনের প্রক্রিয়া চলছে।


উল্লেখ্য যে, পূর্ব-বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে প্রতিপক্ষ বিএনপি কর্মীরা যুবলীগ নেতাকে লক্ষ্য গুলি-বর্ষন করে। রাত ৯ টার দিকে মূর্মুর্ষু অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনা হলে জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত ডাক্তার যুবলীগ নেতা সাদেকুলকে মৃত ঘোষনা করেন। মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে পঞ্চসার ইউনিয়ন যুবলীগের নেতাকর্মীরা হত্যার প্রতিবাদে শহরের থানারপুল ও জুবলী রোডে বিক্ষোভ মিছিল করে। নিহত সাদেকুল রতনপুর গ্রামের সিদ্দিক শেখের ছেলে। সাদেকুলের ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে।

যমুনা নিউজ

Leave a Reply