নাশকতা প্রতিরোধে মাওয়ায় লাঠি নিয়ে শ্রমিকদের পাহারা

Mawa-photo-10নাশকতা প্রতিরোধে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ফেরিঘাট এলাকায় প্রশাসনের পাশাপাশি গত দুই রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন পরিবহন শ্রমিকরা। সোমবার রাতেও লাঠিসোটা নিয়ে মাওয়া ঘাটে শ্রমিকদের পাহারা দিতে দেখা যায়।

গত রোববার থেকে মাওয়া ফেরিঘাট, লঞ্চঘাট ও বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাতভর পুলিশের পাশাপাশি পরিবহন শ্রমিক, এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা পালাক্রমে পাহারা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঢাকা-মাওয়া রুটে চলাচলরত একাধিক বাস মালিক জানান, জামায়াতসহ বিরোধীদলের নাশকতা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর
সঙ্গে পরিবহন শ্রমিক, এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা লাঠিসোটা নিয়ে রাস্তার বিভিন্ন মোড় ও অলিগলিতে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন।

পরিবহন শ্রমিক শরিফ মিয়া জানান, ৮-১০ জন করে কয়েকটি ভাগে ভাগ হয়ে বিভিন্ন পয়েন্টে রাত জেগে পাহারা দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আর তাদের জন্য বাস ও লঞ্চ মালিক সমিতি মজুরির ব্যবস্থা করেছেন।
Mawa-photo-10
লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল কালাম বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০ জন শ্রমিক কয়েকটি ভাগে ভাগ হয়ে রাতভর পাহারা দিচ্ছেন।

উল্লেখ্য, শনিবার ভোরে দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে মাওয়া এলাকায় গাঙচিল পরিবহন ও ঘাটে থাকা গ্রেট বিক্রমপুর পরিবহনের ৩টি বাস ও একটি লঞ্চ পুডে যায়। এছাড়া তারা ২টি লঞ্চও ভাঙচুর করে।

এ সময় আলমগীর নামে যাত্রীবাহী বাসের এক হেলপার অগ্নিদগ্ধ হয়ে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢমেক) হাসপাতালের বার্ন
ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। এ ঘটনার যেন আর পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য বাস ও লঞ্চ মালিক সমিতির উদ্যোগে পুলিশের পাশাপাশি নাশকতা প্রতিরোধে শ্রমিকরা পাহারা দেওয়ার উদ্যোগ নেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply