পুস্তির নির্বাচনী ক্যাম্পে ব্যানারে ও পোষ্টারে আগুন

pusti2মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকন্ঠ নয়াগাঁও এলাকায় রাতের আঁধারে বিএনপি দলীয় উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দিয়েছে দুস্কৃতকারীরা। তাছাড়া চরাঞ্চল বাংলাবাজার গ্রামে ২ টি ব্যানার ও শতাধিক পোষ্টারে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে।

বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশারফ হোসেন পুস্তি জেলা রিটার্নিং অফিসার সারওয়ার মোর্শেদের বরাবরে লিখিত পত্র দিয়ে এ অভিযোগ করেছেন। প্রার্থীর সাক্ষরিত লিখিত ওই পত্রে আগুন দেওয়ার ঘটনায় ক্ষমতাসীন দলের চেয়ারম্যান প্রার্থী আনিসউজ্জামান আনিসের সমর্থকদের দায়ী করা হয়েছে।
pusti2
মুন্সীগঞ্জ সদর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সুলতান উদ্দিন যমুনা নিউজকে জানান, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাত থেকে বুধবার ভোরের মধ্যে সদর উপজেলার পৃথক ২ স্থানে বিএনপির মোশারফ হোসেন পুস্তির ১ টি নির্বাচনী ক্যাম্প, ২ টি ব্যানার ও শতাধিক পোষ্টারে আগুন দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় সদর থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ হাতে এলে পুলিশ ঘটনা খতিয়ে দেখবে। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে।

সাবেক উপমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাই সকালে আগুনে পোড়া নির্বাচনী ক্যাম্প ঘুরে দেখে যান। তিনি ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার ও বিচারের কাঁঠগড়ায় দাঁড় করানোর দাবী জানিয়েছেন।

যমুনা নিউজ
=======


মুন্সীগঞ্জে পুড়িয়ে দেয়া হলো নির্বাচনী ক্যাম্প

মুন্সীগঞ্জের বিএনপির সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্প পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতের যে কোন সময় শহর উপকণ্ঠের নয়াগাঁও মাজার সংলগ্ন রাস্তার পাশে এ ক্যাম্পটি পুড়িয়ে দেয়া হয়েয়ে। বুধবার সকাল ১০ টার দিকে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশারফ হোসেন পুস্তি, ভাইস চেয়ারম্যান শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুবী আক্তার ক্ষতিগ্রস্থ ক্যাম্পটি পরিদর্শন করেছেন।
pusti1
জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি সদর উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ মোশারফ হোসেন পুস্তি জানান, তার আনারস প্রতীকের ক্যাম্পটি আওয়ামী লীগ সমর্থিতরা রাতের আধারে পুড়িয়ে দিয়েছে। এ অবস্থায় সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তার এ নির্বাচনী ক্যাম্প পুড়ানোর মধ্যে দিয়ে নির্বাচনের দিন বিভিন্ন কেন্দ্র দখলেরও চিত্র ফুটে উঠেঠে। ইতোমধ্যে সদর উপজেলা এলাকায় ৬৫টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ আখ্যায়িত করে তিনি জেলা নির্বাচন কমিশনারের কাছে একটি লিখিত আবেদন করেছেন বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আনিছ-উজ্জামান আনিছকে মোবাইল ফোন করা হলে তিনি বলেন, আমি গাড়িতে। সামনা সামনি ছাড়া বক্তব্য দেয়া যাবে না। ফিরতে সন্ধ্যা হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৭শে ফেব্রুয়ারি এ উপজেলার নির্বাচন

মুন্সীগঞ্জ বার্তা
========

Leave a Reply