পদ্মা সেতু নির্মাণের কার্যাদেশ জুনে

ok1পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতু নির্মাণ সংক্রান্ত কার্যাদেশ এ বছরের জুনে দেওয়া হবে।এছাড়া নদী-শাসন কাজের কার্যাদেশ আগস্টে দেওয়া হবে বলেজানালেন যোগাযোগ-মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতু নির্মাণের জন্য মাওয়া ঘাট স্থানান্তর-বিষয়ক এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর মূল অবকাঠামো নির্মাণের জন্য তিনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দরপত্র জমা দিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের দর কারিগরি কমিটিতে যাচাই-বাছাই চলছে। জুনে কার্যাদেশ দেওয়া হবে।

মূল সেতু ও রোড অ্যান্ড রেল ভায়াডাকট নির্মাণের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ হাজার ১৭২ দশমিক ১৭ কোটি টাকা। নদী-শাসন কাজের জন্য পাঁচটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দর প্রস্তাব করেছে। এই প্রস্তাব মূল্যায়ন করা হচ্ছে। আগস্টে কার্যাদেশ দেওয়া সম্ভব হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, জাজিরা অ্যাপ্রোচ রোড, টোল প্লাজা ও অন্যান্য ফ্যাসিলিটি নির্মাণে গত বছরের ৮ অক্টোবর (এএমএল-এইচসিএম জেভি, বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া) কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১০৯৭.৩৯ কোটি টাকা। কাজ শেষ হয়েছে ২০ শতাংশ।

মাওয়া অ্যাপ্রোচ রোড, টোল প্লাজা ও অন্যান্য ফ্যাসিলিটিস নির্মাণে একই বছরের ১৩ নভেম্বর (এএমএল-এইচসিএম জেভি, বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া) কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১৯৩.৪০ কোটি টাকা। এখন পর্যন্ত কাজ হয়েছে ১৫ শতাংশ।

সার্ভিস এরিয়া-২-এর কাজও ১৩ নভেম্বর কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে আবদুল মোনেম লিমিটেডকে। এতে ব্যয় হবে ২০৮.৭১ কোটি টাকা। এ পর্যন্ত কাজ শেষ হয়েছে ১৫ শতাংশ।

জাজিরা অ্যাপ্রোচ রোড, মাওয়া অ্যাপ্রোচ রোড ও সার্ভিস এরিয়া ২-এর বাস্তব কাজ সুপারভিশনের জন্য স্পেশাল ওয়ার্কস অর্গানাইজেশন-পশ্চিম, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

মূল সেতু ও নদীশাসন কাজ সুপারভিশনের জন্য (দেশি ও বিদেশি) পরামর্শক নিয়োগের কাজ চলছে। যা জুন মাসের মধ্যেই শেষ হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply