লৌহজংয়ে পদ্মার চরের ২শতাধিক কাঠগাছ কেঁটে নিয়েগেছে দুর্বৃত্তরা

lau treeমুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মার চরের গাঁওদিয়া গ্রামের এক কৃষকের দুই লাখ টাকা মুল্যের প্রায় ২শতাধিক কাঠগাছ কেঁটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। এলাকাবাসি জানায়, আট বছর আগে দুই বিঘা জমির মধ্যে হারুন অর রশিদ মুন্সি কড়ই কাঠ গাছের বাগান করেন। কাঠগাছ গুলোর পরিচর্চা ঠিক ঠাক মতো করতে না পারায় এবং শহরে বসবাসের কারনে হারুন মুন্সি গত বছর একই গ্রামের কৃষক আব্দুর রশীদ বেপারীরকে বাগানটি আড়াই লাখ টাকার চুক্তির মাধ্যমে দশ বছরের জন্য হস্তান্তর করেন।

কাঠবাগানটি পাহাড়া দেওয়ার জন্য আব্দুর রশিদ বেপারী বাগানের পাশে চরের মধ্যে একটি ঘর নির্মান করে রীতিমতো প্রতিনিয়ত পাহাড়া দিতেন। গত ২০/২৫ দিন আগে রশীদ বেপারীর অবর্তমানে দুর্বৃত্তরা দুইদিন ধরে কাঠবাগানের প্রায় দুই শতাধিক গাছ কেটে বাগানটি উজার করে ফেলে।

কৃষক আব্দুর রশীদ জানান, এক বছর ধরে চুক্তি অনুযায়ী কাঠবাগানটি পরির্চ্চা করে আসছি, নয় বছর বয়সী কাঠগাছ গুলো বেশ বড় হয়েছে বর্তমানে একটি কড়ই কাঠগাছ দুই থেকে তিন হাজার টাকা বিক্রি করা যেত এবং আঠারো বছর মেয়াদ শেষ হলে একটি পুর্নাঙ্গ গাছ বিক্রি করা যেত ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকায়। কিন্তু তার আগেই দুর্বৃত্তরা আমার প্রায় দুই শতাধিক কাঠগাছ কেটে নিয়ে গেছে। গাছ কখনোও মানুষের শক্র হতে পারে না। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। এ ব্যাপারে ৯জনকে আসামী করে কোর্টে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
lau tree

বাংলাপোষ্ট

Leave a Reply