স্বজনদের হাহাকারে ভিজে যায় চোখ

Miraz124লাইলী বেগমের (৫৬) আর বাড়ি ফেরা হলো না। আর ৪ দিন পর বড় ছেলে রাজ্জাকের বিয়ে। কিন্তু এখন গজারিয়ায় মেঘনার পাড় থেকে মায়ের লাশ নিয়ে ফিরছেন তার সন্তানেরা।

ছেলে তানভীর এবং সোহেল একটু পর পর মূর্ছা যাচ্ছেন। ‘মা মা মারে…’ হাহাকারে চোখ ভিজে যায় তীরে দাঁড়িয়ে থাকা অন্য স্বজনদেরও। বড় ভাই জাহাঙ্গীর যেন শোকে পাথর হয়ে গেছেন। অন্য দুই ভাইকে আগলে রেখেছেন তিনি।

ছোট দুই ভাই এসেছেন শরীয়তপুর থেকে। আর জাহাঙ্গীর ঢাকা থেকে। শুক্রবার সকালে এসে মায়ের লাশ চিহ্নিত করেছেন ছেলেরা।

মেঘনার পাড়ে এখন লঞ্চডুবিতে নিহতদের লাশ শনাক্ত করছেন স্বজনেরা।
Miraz124
শুক্রবার সকাল আটটা পর্যন্ত উদ্ধারকৃত ২২টি লাশের মধ্যে ১৮টি শনাক্ত হয়েছে। উদ্ধার হওয়া লাশগুলোকে তীরে এনে রাখা হচ্ছে। সেখান থেকে শনাক্ত করে নিয়ে যাচ্ছেন স্বজনেরা।

দুলাল ব্যাপারী এসেছেন দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চ এমভি মিরাজ-৪ লঞ্চের নিখোঁজ যাত্রী তার স্ত্রী রাশেদা বেগমের খোঁজে। এখনো স্ত্রীর লাশের খোঁজে মেঘনার তীরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি।

দুলাল বেপারী জানান, তার মেয়ে থাকেন ঢাকায়। নাতিকে দিয়ে গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন তার স্ত্রী রাশেদা বেগম। তার সঙ্গে মোবাইলে শেষ কথা হয় বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া তিনটায়। এর ১০ মিনিট পর ফোন দিলেও আর পাওয়া যায়নি।

এখন স্ত্রীর লাশের খোঁজে দিশেহারা তিনি। দীর্ঘজীবনের সঙ্গীকে খুঁজে ফিরছেন মেঘনার তীরে। তার মতোই কয়েক শত স্বজন ঘুরছেন তীরে।

ডুবুরিরা বলছেন, লঞ্চেই এখনো আটকে আছে বেশিরভাগ মৃতের লাশ। তাই লাশের সংখ্যা বাড়বে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার হওয়ার পর।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে গজারিয়া উপজেলার দৌলতপুর গ্রাম সংলগ্ন মেঘনা নদীতে মর্মান্তিক এ লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটে। সদরঘাট থেকে দুপুর একটার দিকে শরীয়তপুরের সুরেশ্বরের উদ্দেশে রওনা হয় এমভি মিরাজ-৪ লঞ্চটি। পথে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার দৌলতপুর এলাকায় পৌঁছালে হঠাৎ ঝড়ের কবলে পড়ে। এতে মাত্র ৩ মিনিটের মধ্যে লঞ্চটি ডুবে যায়। লঞ্চটিতে ২০০ থেকে ২৫০ জন যাত্রী ছিলেন।

এ পর্যন্ত ২২ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ১৮ জনের পরিচয় শনাক্ত করে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন- শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার পাঁচগাঁও গ্রামের জামাল হোসেন শিকদার (৫০), তার ছেলে আবিদ হোসেন শিকদার (২৮), টুম্পা বেগম (৩০), সেতারা বেগম (৫০) ও আরিফ (১১)।

জীবিত উদ্ধার হয়েছেন অর্ধশতাধিক। তাদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৮ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও কয়েকজনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply