সিরাজদিখান ডাকাতের কোপে নিহত ১ : গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০

sirjadikhanDakati0ফলো আপ
বিয়ে বাড়িসহ ৫ বাড়িতে ডাকাতি ২.৫ লাখ টাকা, ৬৪ ভরি স্বর্ণালংকার লুট, আটক ১০
ইমতিয়াজ বাবুল: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার শেখরনগর দক্ষিণহাটি গ্রামে রবিবার গভীর রাতে ডাকাতের হামলায় রিঙ্কু শীল (১৮) নামে এক গ্রামবাসী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় দুই গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ২০ ব্যক্তি আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ পঙ্কজ মজুমদার (৪০) ও দিপক মন্ডল (২৮) এবং ডাকাদের দায়ের কোপে মারাত্মক আহত আনোয়ার বেপারী ও ডাক্তার সজীবকে (৩২) চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের স্থানীয় হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। বিয়ে বাড়িসহ ৫ বাড়িতে থেকে ৬৪ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ২ লাখ ৬০ হাজার টাকাসহ বিপুল পরিমান সম্পদ লুট করে ডাকতরা পালিয়ে যায়। সোমবার পুলিশ সন্দেহজনক ১০ ব্যক্তিকে আটক করেছে। ডাকাতরা শাহজাহান আলী (শাহজাহানের মেয়ে সাথী রিয়ের অনুষ্ঠান ছিল সোমবার), কৃষ্ণ মল্লিক, সাদেক আলী, সিরাজুল ইসলাম ও আনোয়ার বেপারী এই ৫ বাড়িতে ডাকাতি করে সর্বস্ব লুট করে নেয়। রাত পৌনে ২টা থেকে সাড়ে তিন টা পর্যন্ত প্রায় পৌনে ২ ঘন্টা ধরে এই লুটপাট চালায় ডাকাত দল। এক পর্যায়ে গ্রামবাসীরা ধাওয়া করলে ডাকাতরা পাল্টা হামলা চালালে সংঘর্ষ বেধে যায়। একপর্যায়ে শর্টগানের গুলি ছুড়তে ছুড়তে ডাকাতরা পালিয়ে যায়।

মুন্সীগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন মজুমদার জানান, রাত পৌনে ২টার দিকে হাফপ্যান্ট ও মুখোশপড়া ২০/২৫ জনের ডাকাত দল তেঘরিয়া গ্রামের আনোয়ার বেপারীর বাড়িতে প্রথম লুটপাট চালায়। এই সময় আনোয়ার ও তার পুত্র ডা. সজিব, পুত্রবধু সাহানারা আক্তারসহ তিন জনকে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে পার্শ্ববর্তী শেখরনগর দক্ষিণহাটি গ্রামে ডাকাতরা হানা দেয়। এক পর্যায়ে গ্রামাবাসী টেটা ও জুইত্যাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ডাকাতদের ধাওয়া করে। পরে পুলিশও গ্রামবাসীদের সাথে ডাকাতদের ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে ডাকতরা শর্টগানের গুলি ছুড়লে পঙ্কজ মজুমদার গুলিবিদ্ধ হয়। পরে সে টেটা ফেলে পালিয়ে যায়। এই সময় পঙ্কজ মজুমদারের ফেলে যাওয়া টেটা ডাকাতরা ছুড়ে মারে গ্রামবাসীর উদ্দেশ্যে। এই টেটা বিদ্ধ হয় রিঙ্কু শীলের পায়ে। সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ডাকাতরা মাথায় রাম দা দিয়ে কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ডাকাতরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে শেখরনগরের আড়িয়াল বিল দিয়ে পালিয়ে যায়। তবে পুলিশ গুলি ছুড়েছে কিনা, তখন শেখরনগর পুলিশ ফাঁড়ির কি ভূমিকা ছিল ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার তা জানাতে পারেননি।
sirjadikhanDakati0
গ্রামবাসীরা ও ডাকাতি হওয়া পরিবারগুলোর সাথে আলাপ করে জানা যায়, প্রথমে ডাকাতরা তেঘড়িয়া গ্রামের আনোয়ার বেপারীর(৬০) বাড়িতে ডাকাতি করে। এ সময় আনোয়ারের ছেলে ডা. সজিব ডাকাতদের বাধা দেবার চেষ্টা করলে আনোয়ারসহ তাকে ও তার স্ত্রী সাহানারাকে বেদন প্রহার করে মারাত্মক আহত করে ডাকাতরা। ডা. সজিবের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আনোয়ারের বাড়ি থেকে ডাকাতরা নগদ এক লাখ টাকা ও ২০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে। এরপর শেখরনগরে দক্ষিণহাটি গ্রামের কৃষ্ণ মল্লিকের বাড়িতে হানা দেয় ডাকাত দল। এখান থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে। ডাকাতের হামলায় এখানে আহত কৃষ্ণ মল্লিক জানান, তিনি ছাড়াও তার স্ত্রী কৌশলা মল্লিক, ছেলের বউ শিল্পী মল্লিক (২৫) ও অপর ছেলের বউ সুমা মল্লিক(২২)। তার পর ডাকাতরা সাদেক আলীর (৫৬) বাড়িতে ডাকাতি করে। এ বাড়ি হতে ডাকাতরা ১৪ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ২০ হাজার টাকা লুট করে। এ সময় ডাকাতের হামলায় আহত হয় সাদেক আলীসহ তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম, দুই মেয়ে সোমা আক্তার (৩৭) ও সেলিনা আক্তার (২৬) নাতনি আপন (১৯) লাবন্য (১৭) ও এক আত্মীয় আলাউদ্দিন আহমেদ(৫০)। আহত আলাউদ্দিন জানান, তিনি মাদারীপুরের শীবচরে সরকারি কর্মকর্তা। এখানে বেড়াতে এসে ডাকাতের কবলে পড়েন। শেখরনগর রায় বাহাদুর ইনিষ্টিটিউটের সাবেক প্রধান শিক্ষক ও দেশ টিভির স্টাফ রিপোর্টার সৈকত সাদিকের মামা সিরাজুল ইসলামের (৭০) ও তার ভাই শাহজাহানের (৫২)বাড়িতে ডাকাতি করে ডাকাত দল। এই বাড়িতে শাহজাহানের মেয়ে সাথী রিয়ের অনুষ্ঠান ছিল সোমবার। এখান থেকে বিয়ের আয়োজনের জন্য রাখা নগদ এক লাখ টাকা ও ২০ ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নেয় ডাকাতদল। এ সময় ডাকাতের হামলায় আহত হয় শাহজাহান (৫২) তার তিন কন্যা সাথী আক্তার(১৯) মেহের আক্তার (১৭) সুমাইয়া আক্তার (১৩) ও ভাই সিরাজুল ইসলাম(৭০)।
sirjadikhanDakati1
বাড়িতে ডাকাতি না হলেও ডাকাত ধরতে গিয়ে ডাকাতের হামলায় নিহত হয় রিঙ্কু শীল। এসময় আরো আহত হয় দিলীপ শীল, গুলিবিদ্ধ পঙ্কজম জুমদার ও দিপক মন্ডল।নিহত রিঙ্কুর বাড়িতে চলছে এখন শোকের মাতন। স্বজনদের আহাজরিতে রিঙ্কুদের বাড়ির আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে।

শেখর নগর ইউনিয়ন উন্নয়ন ওয়েল ফেরার সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এম এ কাইউম জানান, এখানে একটি অন্থায়ী পুলিশ ক্যাম ছিল। প্রায় ১ বছর হল ক্যাম্পটি তুলে নেয়া হয়েছে। এর পর থেকেই এখানে চোর ডাকাতের উৎপাদ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি পুলিশ ক্যাম্পটি পূণ স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আবুল বাসার জানান, ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ মোট ১০ জনকে আটক করেছে। তারমধ্যে সিরাজদিখান থানা পুলিশ তিন ব্যক্তিকে আটক করেছে। আটককৃতরা তিন জন হচ্ছে শ্রীনগর উপজেলার কামারগাঁও গ্রামের আক্কেল আলীর পুত্র আব্দুল মালেক (৩৫) একই উপজেলার যোলঘর গ্রামের জিতু জমাদারের পুত্র ঠান্ডু জমাদার (৩২) ও সিরাজদিখানের পূর্ব শেখর নগর গ্রামের শেখ সফিলের পুত্র সাইফুল ইসলাম (৩২)। এ ছাড়া একই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পাশ্ববর্তী শ্রীনগর থানা পুলিশ মইনুল (৪০) হরিমন্ডল (২২) সামাদ (২৮) লতিফ (৩০) জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৫) আজিজ লস্কর (৫০) কাশেম (৩৫) নামে ৭ জনকে আটক করেছে। ওসি আবুল বাসার বলেছেন, আটককৃতরা ডাকাতির সঙ্গে জড়িত বলে সনাক্ত করা গেছে। এছাড়া নিহত রিঙ্কুর লাশ ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সিরাজদিখান থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply