শহরের বাজার গুলোতে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিম্নমানের খেঁজুর!

datsমুন্সীগঞ্জ শহরের বাজার গুলোতে চলতি রমজান মাসে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিম্নমানের খেঁজুর। মধ্যপ্রাচ্য দেশগুলো থেকে আমদানি করা এসব খেঁজুরের প্যাকেটে মেয়াদের কোন তারিখ উল্লেখ থাকেনা। ফলে রোজাদাররা বা ক্রেতারা জানতেই পারছেনা তারা কি খাঁচ্ছেন কিংবা এসব খেঁজুর আদৌ মান সম্মত্য কিনা? খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এসব খেঁজুর বাজারে আসার আগে দেশের বড়-বড় শহর গুলোতে গুদাম জাত করা হয় সে সব গুদাম ঘরের তাপ মাত্রা নিয়ন্ত্রণের কোন ব্যবস্থা নেই। ফলে মাসের পর মাস গুদামে নির্দিষ্ট তাপমাত্রা না থাকার কারণে এসব খেঁজুর খাবার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মধ্যপ্রাচ্য থেকে কখন খেঁজুর আসে তা তারা জানাতে পারেনি। তারা কেবল খেঁজুর কিনে এনে দোকানে সাজিয়ে বিক্রয় করে।

একাধিক সূত্র জানায়, আমদানি কারকরা বেশ কয়েক মাস আগেই মধ্যপ্রাচ্য থেকে খেঁজুর এনে আমাদের দেশের বিভিন্ন গুদামে মজুদ করেন ব্যবসায়ীরা। দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা বাজারজাত করেন। বিশেষ করে রমজানে খেঁজুরের ব্যবসা জমজমাট বলে অধিকাংশ মজুদদাররা রমজানে প্রায় সব খেঁজুর বিক্রয় করে ফেলে। সব খেঁজুর আসে দুবাই বন্দর থেকে। কিন্তু কোন দেশের খেঁজুর তা প্যাকেটের গায়ে লেখা থাকেনা। বিক্রেতারাও জানেন না এ খেজুরগুলো কোন দেশের। তাদের ধারণা এগুলো আসে ইরাক, ইরান ও সৌদি আরর থেকে।

তবে প্যাকেটজাত খেঁজুরগুলোর মান তুলনা মূলক ভাবে ভালো। চকোলেট রঙ্গের এ খেঁজুরগুলো দেখতে বেশ ঝরঝরে দামও বেশি। রমজান আসলে খেঁজুরের মূল্য বেড়ে দ্বিগুন হয়ে যায়। বর্তমানে মুন্সীগঞ্জ শহরে যে সব খেঁজুর বিক্রয় হচ্ছে তা খাওয়ার অনুপযোগী। নিম্নমানের খেঁজুরের মূল্য একটু কম থাকায় অধিকাংশ ক্রেতারা এসব নিম্নমানের খেঁজুর ক্রয় করে থাকে। এছাড়া খেঁজুরের মধ্যে এক ধরনের কেমিকেল মিশ্রনের কারনে অধিকাংশ ক্রেতার প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। কেমিকেল মাখানো খেঁজুর দেখতে চকচকে কিন্তু খেতে স্বাধ খুবই কম।

মুন্সীগঞ্জ বাজারের ফল বিক্রেতা মো. হাবিবুর রহমান জানান, মানুষ ঝরঝরে খেঁজুর নিতে চায় না কারণ দাম বেশী তাই ভেজা খেঁজুর আনা হয়। নিম্নমানের খেঁজুরের ক্রেতার সংখ্যা বেশী ফলে এসব খেঁজুর বাজার দখল করেছে। নিম্নমানের খেঁজুর খাওয়ার কারণে মানুষের পেটের পীড়া, কিডনি জনিত রোগসহ নানাবিধ সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়া খেঁজুরে যদি বিশাক্ত কেমিকেল মিশানো হয় তাহলে কিডনিসহ নানা বিধ রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

এবিনিউজ

Leave a Reply