মুন্সীগঞ্জ শহরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার

munshigonj eidমুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। আর এ উৎসবকে সামনে রেখে মুন্সীগঞ্জে জমে উঠেছে ঈদ বাজার। শুক্রবার মুন্সীগঞ্জ শহরের শপিং কমপ্লেক্স গুলোতে ক্রেতাদের উপচে পরা ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

শিশু কিশোর তরুণ-তরুণী থেকে শুরু করে সব বয়সের নারী পুরুষ ব্যস্ত সময় পার করছেন পছন্দের কেনাকাটা করার জন্যে। দিনের বেলায় শহরের শপিং কমপ্লেক্সে ভীড় কিছুটা কম হলেও সন্ধ্যায় ক্রেতাদের সংখ্যা বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ। দোকানগুলোতে মেয়েদের ভীড় চোখে পরার মত।

সকাল থেকে শুরু করে রাত ১২টা পর্যন্ত বেচা-কেনা চলতে থাকে।

মুন্সীগঞ্জ শহরের মসজিদ মার্কেট, জিএইচসিটি সেন্টার, ইসলাম মার্কেটে, জেলা পরিষদ মার্কেট, সুপার মার্কেটসহ প্রায় সবকটি দোকানে এখন ক্রেতাদের ভীড় লেগেই আছে। তাছাড়া বাটা, এপেক্স, এডিডাস , ডিডেলাস, দাদা সুজসহ শহরের সবগুলো জুতার দোকান এখন ক্রেতায় পরিপূর্ণ।
munshigonj eid
মুন্সীগঞ্জ এর বাজার কমিটি এবং প্রশাসন থেকে নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

ঈদ উৎসব উপলক্ষে মুন্সীগঞ্জের বিউটি পার্লারগুলোতে তরুণীদের ভীড় দেখা যাচ্ছে।

বিউটিশিয়ান মালিকা জানিয়েছেন, এবার অন্যান্য বারের চেয়ে মহিলাদের ভীড় বেশি। মুন্সীগঞ্জের প্রায় সবগুলো পার্লারে এখন ভীড় বেশি।

মুন্সীগঞ্জের টেইলার্সের দোকানগুলোতে বেশ লোক সমাগম দেখা গেছে। শহরের সবকটি টেইলার্সে কারিগরদের ব্যস্ততা আগের চেয়ে বেড়ে গেছে। সময় মতো কাপর ডেলিভারি করতে সকলেই দিন রাত কাজ করছেন।

কাপড় বিক্রেতা মো. ইব্রাহিম জানান, ক্রেতাদের পছন্দ অনুযায়ী কাপড় পেয়ে সন্তুষ্ট। এবার বাচ্চাদের কাপড় বেশি বিক্রি হয়েছে। বাচ্চাদের কাপড় পাওয়া যাচ্ছে ৮০০ টাকা থেকে সাড়ে ৭ হাজার টাকার মধ্যে।

ঈদ কেনাকাটায় ব্যস্ত কয়েকজন যুবক জানান, দাম একটু বেশি থাকলেও মনের মতো কেনাকাটা করতে বেশ কটি দোকান ঘুরেছেন তারা। তাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে পাঞ্জাবি আর জিন্স প্যান্ট।

সাধ্য অনুযায়ী নতুন পোশাকে নিজেকে এবং পরিবারের সদস্যদের সাজিয়ে নিতে সকলেই এখন ব্যস্ত। এক কথায় ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে পছন্দের পণ্যটি কিনতে ব্যাস্ত হয়ে উঠেছেন সবাই। আর ক্রেতা এবং বিক্রেতাদের ব্যস্ততায় জমে উঠেছে মুন্সীগঞ্জের ঈদবাজার।

ব্রেকিংনিউজ

Leave a Reply