মাওয়া ঘাটে মানুষের ঢল সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ

mawa ghatনাঁড়ীর টানে নিজ গন্তব্যে ছুটে চলছেন ঘরমুখো মানুষ। এ সময় পদ্মা পাড়ি দিতে মাওয়া ঘাটে দীর্ঘ যানজট আর জনজট দেখা দেয়। ভোররাত থেকেই ৬/৭ শতাধিক যাত্রীবাহী যানবাহনের চাপে মাওয়া ঘাটে ফেরীর টার্মিনালে ছিল যানবাহনের দীর্ঘ লাইন।

যাত্রীবোঝাই যানবাহনের ভীড়ে হিমশিম খেতে হয়েছে মাওয়া ফেরীঘাট কর্তৃপক্ষকে। এতে করে রাজধানী থেকে ছেড়ে আসা দূরপাল্লার অধিকাংশ যানবাহনই ফেরী পারপারের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে। ফলে কয়েক ঘন্টাব্যাপী চরম দুর্ভোগে পড়েন ফেরীযাত্রীরা।

শনিবার সকাল থেকেই এরুটের যাত্রীদের কাছ থেকে বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঢাকা মাওয়া রুটের গুলিস্তান থেকে সিটিং সার্ভিস গুলোতে নির্ধারিত বাস ভাড়া ৭০টাকার স্থলে ১০০ টাকা রাখা হচ্ছে এমনটাই বলছেন যাত্রীরা ।

ঢাকা মাওয়া রুটের বাসযাত্রী মেদিনী মন্ডল গ্রামের-জন্নাতমৃধা জানান, দুইদিন আগেও ৭০টাকা দিয়ে মাওয়া এসেছি কিন্তু এখন ১০০ টাকা করে নেয়া হচ্ছে। এদিকে অতিরিক্ত যাত্রীর কারণে গতকালও মাওয়া লঞ্চঘাটে ধারণক্ষমতার চেয়ে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেছে নৌরুটের লঞ্চগুলো।
mawa ghat
শনিবার ভোর থেকে মাওয়া – কাওড়াকান্দি ও মাওয়া- মাঝিকান্দি নৌপথে লঞ্চগুলোতে ছিল যাত্রীদের আগে ওঠার প্রতিযোগীতা।এছাড়া ট্রলারেও পদ্মা পাড়ি দিচ্ছেন ঘরমুখো যাত্রীরা ।সীবোট কাউন্টারে মাথাপিছু ভাড়া ঈদের আগ পর্যন্ত ১৮০টাকা নির্ধারিত করা হলেও এখন অনেক বেশি রাখছে বলে অভিযোগ করেছেন সীবোড যাত্রীরা। তবে ভাড়া যাই হোক সীবোট ঘাট কাউন্টারে যাত্রীদের ছোট ছোট লাইন দেখা গেছে।

নতুন সময়

Leave a Reply