বন্যা পরিস্থিতির অপরিবর্তীত ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দি

padma flood5454মুন্সীগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি বৃহস্পতিবার অপরিবর্তত রয়েছে। ভাগ্যকুল পয়েন্টে পদ্মা আরও ১ সেন্টিমিটার পনি কমে পেয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় বিপদসীমার ১৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছিল। জেলায় নতুন করে কোন অঞ্চল প্লাবিত হবার খবর পাওয়া যায়নি। এছাড়া শ্রীনগর, লৌহজং, টঙ্গিবাড়ী ও সদর উপজেলার একাংশে পদ্মা অববাহিকার নি¤œাঞ্চলের প্লাবিত এলাকাগুলোর অবস্থা একই রকম রয়েছে।

শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকূল ও বাঘরা, লৌহজংয়ের মেদিনীমন্ডল, হলদিয়া, কনকসার, কুমারভোগ সিরাজদিখানের চিত্রকোট, টঙ্গীবাড়ির পাঁচগাঁও, হাসাইলবানারী, সদর উপজেলার শিলইসহ বিস্তীর্ণ প্লাবিত এলাকার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তীত রয়েছে। প্রায় ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়ে। তলিয়ে গেছে আগাম ফসলি জমি।
padma flood5454
এদিকে লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ ও টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কামারখাড়ায় পদ্মার ভাঙ্গন আরও ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। ৪৮টি পরিবারের বাড়িঘর পদ্মায় বিলীন হয়েগেছে। ভাঙ্গনের মুখে টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কামারখাড়া বড়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যায়লয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশানক মো. সাইফুল হাসান বাদল জানান, বন্যাবাহিত রোগের ব্যপারেও প্লাবিত গ্রামগুলোতে মেডিক্যাল টিম কাজ করছে। বন্যার্তদের জন্য সরকারিভাবে ১শ’ টন চাল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি করা চাল বিতরণ নির্দেশ দিয়ে এই উপজেলা পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সর্তক রয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যতিত জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সচল রয়েছে। এখনও কোন আশ্রয় কেন্দ্রে খোলা হয়নি।

বিডিলাইভ

Leave a Reply