মাওয়ায় জামাই-শ্বশুর সংঘর্ষে সংঘর্ষে ৯ জন আহত

sssssঅতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন
মাওয়া ঘাটের কর্তৃত্ব নিয়ে জামাই-শ্বশুরের মধ্যে সংঘর্ষে ৯ জন আহত হয়েছে। আহতদের ঢাকা ও স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার দিনভর এই বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে চলছে নানা রকম মহড়া। ফের সহিংসতা ঠেকাতে মাওয়ায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাওয়া নতুন ৩ নম্বর ফেরি ঘাটের পাশে শুক্রবার রাত পৌনে টার দিকে রশি বেধে দোকানের জন্য জায়গা দখল করে স্থানীয় মেদিনীমন্ডল ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ খানের মেয়ের জামাই সুমন আহম্মেদ।

খবর পেয়ে আপন শ্বশুর আশারাফ খান লোক পাঠিয়ে রশি ফেলে দেয়। এই সময় বেধে যায় সংঘর্ষ। তুমুল এই সংঘর্ষে আহত হয় আশরাফ গ্রুপের দিনু খান(৩৩), মো. রুবেল(৩০), মো. শাওন(২৮) ও রফিকুল ইসলাম লরেন্স(২৭)। অন্যদিকে জামাই সুমন গ্রুপের আহদের মধ্যে রয়েছে সুমন আহমেদ (৩০) ডিএম পরিবহনের সুপার ভাইজার শাহীন (৩২) ভিআইপি পরিবহনের সুপার ভাইজার মো. ঝিলন(৩০), শুভ আহমেদ(২৬) ও সাগর (২৫)।

পুলিশ জানায়, সংর্ঘষে ঘটনাস্থলে সকলে আটজন আহত হয়। মারামারি করে চলে যাওয়ার সময় মাওয়া পুলিশ ফাঁড়ির কাছে একা পেয়ে যায় শ্বশুর আশরাফ খানের পক্ষের দিনু খানকে। তাকে রামদা দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। তাকে মূমূর্ষু অবস্থায় ঢাকার সেন্ট্রারাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মাওয়ায় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য এসআই খালিদ হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এখনও কোন পক্ষই মামলা করেনি। মাওয়ার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ সর্তক রয়েছে। স্থানীয় একাধিক সূত্র ও গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে- একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী পরিষদ সদস্যের সাথে আশরাফ খানের বিশেষ সখ্যতা এবং অবৈধ অর্থ ভাগভাটোয়ারা করে কতিপয় ব্যক্তি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে। অতি বিলাসী গাড়ি ব্যবহার ছাড়াও অর্থের পাহাড় গড়েছেন। তাই এসব কাচা টাকার লোভে আপন জনদের মধ্যেও বেধে গেছে বিরোধ।

সূত্র জানায়, এই ফেরিঘাটের কয়েকটি দোকান থেকে প্রতি দিন আয় ৫০ হাজার টাকা। এছাড়া এখানকার কর্তৃত্বের কারণে নানা রকম অবৈধ রোজগার রয়েছে।

মুন্সিগঞ্জেরকাগজ

One Response

Write a Comment»
  1. ভালই লাগলো খবরটা শুেন মাওয়ায় জামাই ও শশুর মারামারি করেছে সবার সােথ share করা যাক।।।

Leave a Reply