মধুর ক্যান্টিনে ওয়াইফাই

madhuCantWiFiঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে চালূ করা হলো উচ্চগতির ইন্টারনেট প্রযুক্তি ‘ওয়াইফাই’ সেবা। ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে শনিবার দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে ওয়াইফাই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইয়েদ আহমেদ পলক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইটি সোসাইটির উদ্যোগে এবং এরিকসনের অর্থায়নে মুধুর ক্যান্টিনে দুটি রাউটারের মাধ্যমে ১০ এমবিপিএস ব্যান্ডউইথ গতি সম্পন্ন ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হয়েছে। যা সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছ।

উদ্বোধন করে প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, প্রগতিশীল ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের ছাত্রসমাজ অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে এবং অন্ধকার, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তির প্রচারণা অনলাইনে মোকাবেলার জন্য এই ওয়াইফাই প্রযুক্তি ব্যবহার করবে।

তিনি আরও বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির অবাধ প্রবাহের দিকে যুক্ত হয়ে ক্রমেই উজ্জ্বল সম্ভাবনার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ অগ্রযাত্রাকে আরও দৃঢ় করতে ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে তথ্যপ্রযুক্তি সম্পন্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের বিকল্প নেই।

এর আগে উদ্বোধনের পরই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সকল শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
madhuCantWiFi
উদ্বোধনী এই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, শহীদ মধুসূদন দে’র (মধু দা) ছেলে মধুর ক্যান্টিনের পরিচালক অরুন দে, এরিকসনের বাংলাদেশ প্রতিনিধি মি. রাজ, আইটি সোসাইটির সভাপতি আব্দদুল্লাহ আল ইমরান, ছাত্রলীগের সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগসহ বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

গত ১৮ আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে ছাত্রনেতাদের দাবির প্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মধুর ক্যান্টিনে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী।

৩য় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব রবিবার শুরু

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি ও সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে ‘৩য় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব’।

মধুর ক্যান্টিনের ওয়াইফাই উদ্বোধনের আগে ঢাবির টিএসসি(ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র) ক্যাফেটারিয়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী জানান, উদ্বোধনী দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিক এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন।

তিনি আরও জানান, ক্যাম্পাস নির্ভর তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক দেশের সর্ববৃহৎ এই উৎসবে এবার ৭০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ১৫০০ শিক্ষক-শিক্ষার্থী অংশ নেবে।

এতে দুটি সেমিনার, একটি কর্মশালা ও বিজনেস আইডিয়া নিয়ে প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।

দুইদিন ব্যাপী এ উৎসব শেষ হবে ১৫ সেপ্টেম্বর সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায়।

দ্য রিপোর্ট

Leave a Reply