সিরাজদিখানে স্থাপিত হচ্ছে স্বতন্ত্র মুদ্রণ শিল্পনগরী

pritingindustryবাংলাদেশের মুদ্রণশিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার একটি স্বতন্ত্র মুদ্রণ শিল্পনগরী স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) ভিত্তিতে প্রস্তাবিত বিসিক মুদ্রণ শিল্প এস্টেট স্থাপনের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১৯৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯০ শতাংশ সংশ্লিষ্ট উদ্যোক্তারা বহন করবে এবং বাকি ১০ শতাংশ সরকার ঋণ হিসেবে প্রদান করবে। মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলায় প্রায় ৫০ একর জমির ওপর নির্মিতব্য এই মুদ্রণ শিল্পনগরীতে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধাসংবলিত ৪১৯টি শিল্প প্লট আগ্রহী মুদ্রণকারীদের বরাদ্দ দেওয়া হবে বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতি।

প্রস্তাবিত মুদ্রণ শিল্পনগরী দ্রুত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশের মুদ্রণশিল্পের প্রতিনিধিত্বকারী বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতি (বামুশিস) এবং বিদেশি ব্যবসায়ী উদ্যোক্তাদের সঙ্গে সফল আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে একটি জাপানি ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা গোষ্ঠী সম্প্রতি বাংলাদেশ সফর করে। সফররত জাপানি ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা গোষ্ঠী গত মঙ্গলবার বিসিক বোর্ডরুমে শিল্প মন্ত্রণালয় ও বিসিকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে প্রস্তাবিত মুদ্রণ শিল্পনগরী স্থাপনের বিষয়ে মতবিনিময় করে। জাপানের মিজুকামি প্রিন্টিং ইনকের এমডি এবং জাপান ফেডারেশন অব প্রিন্টিং ইন্ডাস্ট্রিজের সাবেক প্রেসিডেন্ট মি. মিজুকামির নেতৃত্বে সফররত প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যরা ছিলেন মিজুকামি প্রিন্টিং ইনক জাপানের পরিচালক মি. অগিও ও মি. ইমি।

জাপানি দলনেতা বাংলাদেশের মুদ্রণশিল্পের উন্নয়নে আগ্রহ প্রকাশ করে বলেন, বাংলাদেশে মুদ্রিত মুদ্রণ সামগ্রী জাপানে রপ্তানি করার সুযোগ রয়েছে। তিনি আরোও বলেন, জাপানে ফিরে গিয়ে জাপান ফেডারেশন অব প্রিন্টিং ইন্ডাস্ট্রিজ, জেটরো এবং জাইকার সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামী বছর জানুয়ারিতে আরো অধিক সংখ্যক উদ্যোক্তাকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসবেন।

কালের কন্ঠ

Leave a Reply