পদ্মা সেতুর সয়েল টেস্টের উপকরণ মাওয়ায়

padmaMপদ্মা সেতু নির্মাণে মালামালের প্রথম শিপমেন্ট হিসেবে সয়েল টেস্টের জন্য ‘বেন্টানাইট’ পাউডার মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় পৌঁছেছে। বৃহস্পতিবার বিকালে লৌহজং উপজলোর কুমারভোগ এলাকায় অবস্থিত পদ্মা সেতুর কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে চীনের থেকে আগত এই মালামাল পৌঁছায় বলে লৌহজংয়ের ইউএনও মো. খালেকুজ্জামান জানিয়েছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “চীন থেকে পদ্মা সেতুর আরও মালামাল চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছেছে। সেগুলোও শিগগিরই মাওয়ায় আসবে। এছাড়া আরও মালামাল পথে রয়েছে।”

পদ্মা সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল কাদের বলেন, “বুধবার রাতে রওনা হয়ে যথাসময়ে প্রথম শিপমেন্ট পৌছেছে। আরও দু’টি শিপমেন্ট চট্টগ্রাম পোর্টে রয়েছে।”

রোববার দ্বিতীয় শিপমেন্টের মাওয়ায় পৌঁছাবে এবং সেগুলোতেও টেস্টিং ইক্যুইপমেন্টস রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, “চীনের সাংহাই থেকে বৃহস্পতিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) আরেকটি বড় শিপমেন্ট রওনা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু আবহাওয়ার খারাপ থাকায় পূর্বাভাস অনুযায়ী তা তিনদিন পিছিয়েছে। ক্রেইন ও বার্জসহ বড় এই শিপমেন্টের মালামাল নিয়ে ২৮ সেপ্টেম্বর দু’টি জাহাজ রওনা হবে।”

তিনি জানান, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সড়ক পথে ছয়টি ট্রাকে করে ৬০ টন ‘বেন্টানাইট’ সরাসরি মাওয়াতে আনা হয়।
padmaM
পরবর্তীতে চায়না মেজর ব্রিজ ও পদ্মাসেতু প্রকৌশলীদের উপস্থিতিতে মাওয়ার কুমারভোগে পদ্মা সেতুর কন্সট্রাকশন সাইটে মালামাল নামানো হয়।

১২ হাজার ১০০ কোটি টাকায় পদ্মা সেতুর মূল কাঠামো নির্মাণে চীনা কোম্পানি চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডকে এ বছরের ২ জুন কার্যাদেশ দেয় সরকার।

চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানির পক্ষে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পদ্মা সেতু নির্মাণের মালামাল খালাস ও কন্স্ট্রাকশন সাইট পৌঁছানোর দায়িত্ব পেয়েছে সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠান এস আই চৌধুরী অ্যান্ড কোম্পানি এবং পান্না ট্রেডার্স।

এস আই চৌধুরী অ্যান্ড কোম্পানি -এর পরিচালক আলী আহমদ জানান, ‘বেন্টানাইট’ এক ধরনের কেমিক্যাল জাতীয় পাউডার। এটি পদ্মাসেতুর কাজে সয়েল টেস্টের জন্য ব্যবহার করা হবে।

তিনি জানান, গত ১৮ অগাস্ট সমুদ্রপথে চীন থেকে জাহাজে করে পদ্মাসেতু নির্মাণ কাজের এসব সামগ্রী চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছায়। ১৫ অক্টোবরের মধ্যে যন্ত্রপাতি ও মালামলের দ্বিতীয় শিপমেন্ট চট্টগ্রামে এসে পৌঁছাবে।

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল বলেন, “প্রথম শিপমেন্ট আসার মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতু কর্মযজ্ঞ আরও বেড়ে গেল। তাই সেখানকার নিরাপত্তাসহ সকল কর্মকাণ্ডের প্রয়োজনীয় সহযোগিতায় স্থানীয় প্রশাসন গুরুত্বের সাথে অংশ নিচ্ছে।”

বিডিনিউজ

Leave a Reply